অল্পের জন্য ৪০০ ছোঁয়া হলো না মাশরাফিদের

ক্রিকেট খেলাধুলা

ঢাকা প্রিমিয়ার লীগের এবারের আসরে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই সুপার সিক্স রাউন্ডে পা রেখেছিলো নাসির মাশরাফিদের আবাহনী লিমিটেড দলটি। সুপার সিক্সে নিজেদের প্রথম ম্যাচে গাজি গ্রুপের বিপক্ষে ৭৩ রানের বড় ব্যবধানে জয় দিয়ে শুভ সূচনাও করেছিলো তারা। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে শেখ জামালের কাছে হারতে হয় মাশরাফিদের।

এবার সুপার সিক্সের সর্বশেষ ম্যাচে আবারো জয়ের প্রত্যাশায় ফরহাদ রেজার প্রাইম দোলেশ্বরের মুখোমুখি হয়েছে আবাহনী। আর সাভারের বিকেএসপিরর তিন নম্বর মাঠে অনুষ্ঠিত গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে প্রথমে টসে জিতে ব্যাটিং করতে নেমে রানের এভারেস্ট দাঁড়া করিয়েছে মাশরাফিদের দলটি, অল্পের জন্য চারশ ছোঁয়া হলো না।

দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় এবং নাজমুল হাসান শান্তর জোড়া সেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৪ উইকেটে ৩৯৩ রান সংগ্রহ করেছে আবাহনী। এদিন বিজয় ১২৮ এবং শান্ত ১২১ রান করেন। এরপর ভারতীয় রিক্রুট ভানুমা বিহারিও দারুণ ব্যাটিং করেছেন।

তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৬৬ রানের অনবদ্য আরেকটি ইনিংস। আর উইকেটরক্ষম ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিথুন শেষ পর্যন্ত ৪৭ রানে অপরাজিত থেকে দলকে বড় সংগ্রহ এনে দেন। আর তাঁর সঙ্গী মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত অপরাজিত থাকেন ৬ রান নিয়ে।

আবাহনীর ব্যাটসম্যানদের তান্ডবের সামনে একেবারেই সুবিধা করতে পারেননি দোলেশ্বরের বোলাররা। সালাউদ্দিন শাকিল ১০ ওভার বোলিং করে ২ উইকেট শিকার করলেও রান দিয়েছেন ৮১। আর ৮০ রান খরচায় আরেকটি উইকেট পেয়েছেন অধিনায়ক ফরহাদ রেজা।

উল্লেখ্য আবাহনীর ৩৯৩ রানের এই ইনিংসটি ডিপিএলে তাদের দলীয় সর্বোচ্চ। এর আগে চলতি আসরেই মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে ৩৩৫ রান সংগ্রহ করেছিলো নাসির- মাশরাফিদের দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

আবাহনী- ৩৯৩/৪ (৫০ ওভার) (বিজয়- ১২৮, শান্ত- ১২১, বিহারি- ৬৬)

(শাকিল- ২/৮১, রেজা- ১/৮০)

আবাহনী লিমিটেড-

আনামুল হক বিজয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মাশরাফি বিন মর্তুজা, নাসির হোসেন (অধিনায়ক), মোহাম্মদ মিথুন (উইকেটরক্ষক), সানজামুল ইসলাম, সাকলাইন সজীব, ভানুমা বিহারি

প্রাইম দোলেশ্বর ক্রিকেট ক্লাব-

ফরহাদ রেজা (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাস (উইকেটরক্ষক), আরাফাত সানি, ইমতিয়াজ হোসেন, ফরহাদ হোসেন, জাকারিয়া মাসুদ, ফজলে মাহমুদ, শরিফুল্লাহ, মার্শাল আইয়ুব, সালাউদ্দিন শাকিল, ইকবাল আব্দুল্লাহ।