আইপিএলে জমে ওঠেছে সাকিব-মুস্তাফিজ লড়াই

ক্রিকেট খেলাধুলা

ভিভো ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ২০১৮ আসরে ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে দশটি ম্যাচ। যার মধ্যে সমান তিনটি করে ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশ থেকে উড়ে যাওয়া দুই ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। আর এতেই জমে ওঠেছে বল হাতে দুই তারকার লড়াই। শুধু একে-অন্যকেই নয় বরং রীতিমত টেক্কা দিয়ে চলেছেন আসরে অংশ নেওয়া সব বোলারদেরই।

মুস্তাফিজের উইকেট উদযাপন।
মুস্তাফিজের উইকেট উদযাপন।

নতুন দুই দলের জার্সিতে তিনটি ম্যাচের সবকয়টি ম্যাচে অংশ নিয়ে সাকিব ও মুস্তাফিজ উভয় বোলারই এখনো পর্যন্ত নিজেদের ঝুলিতে নিয়েছেন ৫টি করে উইকেট। এমন সাফল্য অর্জনের পর দুজনই যৌথভাবে উঠে এসেছেন চলতি আইপিএলের শীর্ষ উইকেট সংগ্রাহকের তালিকার দ্বিতীয়স্থানে।

সমান ম্যাচ খেলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সাকিব ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মুস্তাফিজের চেয়ে ২ উইকেট বেশি নিয়ে তালিকার সবার উপরে রয়েছেন আরেক মুম্বাই বোলার মায়াঙ্ক মার্কান্দে। নিজের খেলা তিন নম্বর ম্যাচে উইকেটশূন্য থাকলেও আগের দুই ম্যাচে যথাক্রমে ৩ ও ৪ উইকেট শিকারে শীর্ষস্থান অক্ষুণ্ণ রেখেছেন তিনি।

আইপিএলের এবারের আসরে তিন ম্যাচে ১২ ওভার বল করেছেন বাঁহাতি স্পিনার সাকিব। যেখান থেকে ওভার প্রতি ৬.৫০ হারে রান দিয়ে ৭৮ রানের বিনিময়ে ৫ উইকেট সংগ্রহ তার। অন্যদিকে, আসরের প্রথম ম্যাচে অনুজ্জ্বল থাকার পর শেষ দুই ম্যাচে দারুণভাবে প্রত্যাবর্তন করা মুস্তাফিজ ১১.৫ ওভারে বল করে ওভার প্রতি ৭.৪৩ হারে মোট ৮৮ রান দিয়ে নিজের থলেতে নিয়েছেন ৫টি উইকেট।

 

উইকেট শিকারের পর সাকিবের উদযাপন।

সাকিবের তুলনায় কিছুটা ব্যয়বহুল হলেও একদিক দিয়ে জাতীয় দলের সতীর্থের চেয়ে ঠিকই এগিয়ে রয়েছেন কাটার-মাস্টার। আর তা হলো স্ট্রাইক রেটে। প্রতিটি উইকেটের জন্য ১৪.২ বল ব্যয় যেখানে মুস্তাফিজের, ঐখানে প্রতিটি উইকেট নিতে সাকিবকে বোলিং করতে হয়েছে ১৪.৪ বল।

অন্যদিকে, ৩১ বছর বয়সী সাকিব দলের জয়ের পেছনে বল হাতে পরোক্ষভাবে ভূমিকা রেখেছেন দুই ম্যাচে। পক্ষান্তরে, আসরে এখনো জয়ের দেখা না পেলেও, মুস্তাফিজ দলকে জেতার সুযোগ করে দিয়েছিলেন দুটি ম্যাচে। যদিও শেষ পর্যন্ত শেষ বলের রুদ্ধশ্বাস রান তাড়ায় দুটি ম্যাচেই হারতে হয়েছে মুম্বাইকে।