আমিরের ১৩ রানে ৪ উইকেটে হোয়াইটওয়াশ শ্রীলঙ্কা

ক্রিকেট খেলাধুলা

কড়া নিরাপত্তা এবং সাজ সাজ রবের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ম্যাচটি।

আট বছর আগে শ্রীলঙ্কার টিম বাসে সন্ত্রাসী হামলার পর পাকিস্তানের মাটিতে কার্যত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বন্ধ হয়ে যায়। গত আট বছরে জিম্বাবুয়ে ছাড়া শুধু কয়েকদিন আগে বিশ্বকাপ পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে আসে। এবার শ্রীলঙ্কাকে দিয়ে ‘বন্ধ্যাত্ব’ ঘুচানোর পথে কিছুটা এগিয়ে যায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

রোববার ঘরের মাঠে ক্রিকেট ‘প্রত্যাবর্তনের’ দিকে শ্রীলঙ্কার সামনে ১৮১ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্যমাত্রা ছুড়ে দেয় সরফরাজ আহমেদের দল।

লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় শ্রীলঙ্কা। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে টপ ও মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ গড়ে পাকিস্তান।

পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন শোয়েব মালিক। তার ২৪ বলের ইনিংসটি ৫টি চার ও দুটি ছক্কায় সাজানো। এছাড়া ফখর জামান ৩১, উমর আমিন ৪৫, বাবর আজম ৩৪ এবং ফাহিম আশরাফ ৩ বলে করেন ১৩ রান।

শ্রীলঙ্কার হয়ে একটি করে উইকেট নেন ভিকুম সঞ্জয়, দিলশান মুনারাবিরা ও ইসুরু উদানা।

১৮১ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে আমিরের তোপে ২১ রানে তিন উইকেট হারায় লঙ্কানরা। হাফিজ ১, ফাহিম ২ দ্রুত উইকেট তুলে নিলে মাত্র ১৪৪ রানে শেষ হয়ে যায় লঙ্কানদের ইনিংস। আমির ১৩ রানে ৪ উইকেট নিয়ে আবারো ইঞ্জুরি থেকে ফিরে চমক দেখালেন। লঙ্কানদের পক্ষে দাসুন সর্বাধিক ৫৪ রান করেন।

তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৩-০ তে জিতে প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করলো পাকিস্তান। পাশাপাশি টি-টোয়েন্টির র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে জায়গা করে নেবে সরফরাজের দল। এর আগে ওয়ানডে সিরিজে লঙ্কানদের ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করে পাকিস্তান। তারও আগে টেস্ট সিরিজে ০-২ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হয় পাকিস্তান।