আলুর ব্যবহারে কমবে মুখের ব্রন

স্বাস্থ্য

ফলে বারবার ফিরে আসে এই দুঃসহ যন্ত্রণা। ঘরোয়া কিছু পদ্ধতিতে ব্রণ দূর করা সম্ভব। এক্ষেত্রে যে যে উপাদানগুলি বিশেষভাবে সাহায্য করে থাকে, সেগুলি হলঃ

* আলুঃ
আলুতে প্রচুর পরিমাণে তন্তু ও ভিটামিন-এ রয়েছে যা শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ত্বকের যত্নেও আলুকে ব্যবহার করা যায়। এছাড়াও আলুর মধ্যে প্রদাহজনিত সমস্যা নিবারণের ক্ষমতা রয়েছে। এর ফলে ত্বকে কোনোরকম জ্বালা, পোড়া বা কোনোরকমের সংক্রমণ হলে তা সারাতে আলু দারুণ কাজ দেয়।

* ভিনিগারঃ
ব্রণ এবং ফুসকুড়ির মতো সমস্যাকে খুব সহজেই সারিয়ে তুলতে পারে আপেল সিডার ভিনিগার। কারণ এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে জীবাণুনাশক উপাদান থাকে। সেই সঙ্গে থাকে ম্যালিক অ্যাসিড, যা প্রায় সব ধরনের জীবাণু এবং ছত্রাকের সঙ্গে লড়তে পারে।

* বরফঃ
অতি ঠাণ্ডা চরিত্রই নানা ধরনের ত্বকের রোগ সারাতে সাহায্য করে। আসলে বরফ ত্বকের রক্তনালীকে সংকুচিত হতে সাহায্য করে। ফলে প্রদাহজনিত সমস্যা হতে পারে না। সেই সঙ্গে বরফ ত্বককে ঠাণ্ডা রাখে বলে চামড়া ফেটে যাওয়া বা ফুলে ওঠার মতো সমস্যাগুলি হয় না।

* টমাটোঃ
টমাটোর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। এছাড়াও থাকে খনিজ উপাদান এবং ভিটামিন। এই উপাদানগুলি ত্বককে আদ্র রাখে। ফলে ব্রণর প্রকোপ কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে রক্ত চলাচলের উন্নতি ঘটে, লোহিত রক্ত কণিকার পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।

* লেবুর রসঃ
লেবুর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অ্যাসিড বা ক্ষার জাতীয় উপাদান থাকে। ফলে এটি প্রাকৃতিক ক্লিঞ্জার হিসাবে কাজ করতে পারে। সূর্যের আলোতে ক্ষতিগ্রস্থ ত্বক থেকে পোড়া ছোপ ছোপ দাগ যেমন দূর করতে পা