ইনজামামের ভাতিজা সুন্দরী সাংবাদিককে ‘আন্টি’ বলে বিপাকে

ক্রিকেট খেলাধুলা সাক্ষাৎকার

দারুণ এক সেঞ্চুরি দিয়ে অভিষেক ম্যাচটাকে স্মরণীয় করে রাখেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান নির্বাচক এবং দেশটির সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম উল হকের এই ভাতিজা। লঙ্কানদের বিপক্ষে ১২৫ বলে পাঁচ চার ও দুই ছয়ে খেলেন ১০০ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস।

অভিষেক ম্যাচে সেঞ্চুরি করে পাকিস্তানের ক্রিকেট অঙ্গনে হইচই ফেলে দিয়েছেন ইমাম। এরপর থেকেই ভক্ত এবং ক্রিকেটপ্রেমীদের ফোনকল এবং ক্ষুদেবার্তায় ভাসছেন বাঁহাতি এই ওপেনার।

দেশটির নারী সাংবাদিক এবং টেলিভিশন উপস্থাপিকা ফাজিলা সাবাও তরুণ এই ব্যাটসম্যানকে অভিনন্দন জানান। কিন্তু এর জবাবে ফাজিলা সাবাকে আন্টি বলে সম্বোধন করেন ইনজামামের ভাতিজা। তাতে রীতিমতো বিপাকে পড়তে হয় ২১ বছর বয়সী ইমামকে।

অভিষেক ম্যাচে সেঞ্চুরি করার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে নিজের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টের মাধ্যমে ইমামকে শুভেচ্ছা জানান ফাজিলা সাবা। তিনি লেখেন, ‘অভিষেক ম্যাচে সেঞ্চুরি, ইমাম উল হকের জন্য দারুণ একটি অর্জন।’

জবাবে ইমাম উল হক লেখেন, ‘ধন্যবাদ ফাজিলা আন্টি!’ বিষয়টাকে স্বাভাবিকভাবেই নেন ওই নারী সাংবাদিক। জবাবে তিনি লেখেন, ‘কোনও সন্দেহ নেই এই সিরিজে ইমাম আমাদের নায়ক। আন্টির শুভেচ্ছা নিও।’

কিন্তু এটারও উল্টো মানে বের করার চেষ্টায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ইমাম-ফাজিলার ভক্ত ও অনুসারীরা। ঘুরে ফিরে সবার একই প্রশ্ন, ইমাম কেন ফাজিলা সাবাকে আন্টি বলে সম্বোধন করলেন? কেউ কেউ তো ইমামকে আরও শিক্ষিত হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

একজন লেখেন, ‘২২ গজে শুধু ব্যাট চালালেই হবে না। কাকে কীভাবে সম্বোধন করা দরকার সেটাও শিখতে হবে।’ তবে এসব নিয়ে ইমাম-ফাজিলা কেউই কোনও মন্তব্য করেননি।

ফিটনেস সমস্যার কারণে শ্রীলঙ্কার বিপিক্ষে ওয়ানডে সিরিজ থেকে বাদ পড়েন ওপেনার আজহার আলী। তার পরিবর্তে দলে ডাকা হয় ইমামকে। এরপর অভিষেক ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করে আলোচনায় উঠে এসেছেন তিনি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত তাকে অন্তত ৪০০ মেয়ের ফোনকল রিসিভ করতে হয়েছে বলে জানান তিনি। দ্বিতীয় পাকিস্তানি ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি পেয়েছেন ইমাম হাসান।