এক গানে আমিরের এক বোতল ভটকা!

বিনোদন

আমির খান আর কারিশমা কাপুরের ‘রাজা হিন্দুস্তানি’ ছবির কথা মনে আছে নিশ্চয়ই? যেখানে দরিদ্র ক্যাবচালক আমিরের প্রেমে পড়েন ধনীর দুলালি কারিশমা। খুব সাধারণ গল্পের ছবি, কিন্তু বাণিজ্যিকভাবে নব্বই দশকের তৃতীয় সফল সিনেমা এটি। শুধু তা-ই নয়, ১৯৯৬ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবি ফিল্মফেয়ার আসরে পাঁচটি আর স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডে সাতটি পুরস্কার পায়। আজ বুধবার ১৫ নভেম্বর এই ছবি মুক্তির ২১ বছর পূর্তি। হিন্দুস্তান টাইমস পত্রিকা আজ প্রকাশ করেছে ‘রাজা হিন্দুস্তানি’ ছবির সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য।

আমির খান আর কারিশমা কাপুরের জুটি ‘রাজা হিন্দুস্তানি’তে বেশ প্রশংসিত হয়

এই ছবির পরিচালক ধর্মেশ দর্শন প্রথমে নায়িকার চরিত্রে জুহি চাওলাকে নিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আমিরের সঙ্গে ব্যক্তিগত ঝামেলা থাকায় জুহি সেই ছবির প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন। এরপর ধর্মেশ ধরনা দেন সাবেক বিশ্বসুন্দরী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনের কাছে। কিন্তু তখন অ্যাশ নিশ্চিত ছিলেন না অভিনয়কে পেশা হিসেবে নেবেন কি না। বাধ্য হয়ে নির্মাতাকে যেতে হয় পূজা ভাটের কাছে। পূজার এই সিনেমায় অভিনয় করতে কোনো আপত্তি ছিল না। তবে, পূজার বেলায় বাদ সেধে বসেন নায়ক আমির। তিনি চাইছিলেন, এই ছবিতে এমন একজন নায়িকার সঙ্গে কাজ করবেন, যাঁর সঙ্গে আগে কখনো কাজ করা হয়নি। এর আগে ‘দিল হ্যায় কি মানতা নেহি’ ছবিতে জুটি হয়েছিলেন পূজা-আমির। অগত্যা পরিচালক কারিশমা কাপুরকে ছবিতে নিলেন। তবে, যেই আমিরের কথা শুনে পরিচালক নায়িকা পরিবর্তন করেছিলেন, সেই আমিরই কিন্তু প্রথমে ছবিটি করতে রাজি হননি। ধর্মেশ দর্শন অনেক বুঝিয়ে শুনিয়ে রাজি করিয়েছিলেন এ অভিনেতাকে।

আমির খান। ছবি: এএফপি

‘রাজা হিন্দুস্তানি’ সিনেমার জন্য কারিশমা কাপুর মেকওভার করিয়েছিলেন, যা সে সময় বেশ প্রশংসিত হয়। ১৯৯৬ সালে বাণিজ্যিক ছবিতে চুম্বন দৃশ্য দেখানো ছিল বেশ সাহসিকতার ব্যাপার। সিনেমায় আমির ও কারিশমার চুম্বন দৃশ্য আছে। এটিকে এখন পর্যন্ত বলিউডের অন্যতম দীর্ঘ চুম্বন দৃশ্য বলে ধরা হয়। আর ছবিটির ‘তেরে ইশক মে নাচেঙ্গে’ গানে মাতালের অভিনয় করতে নাকি জীবনে প্রথমবারের মতো মদ ছুঁয়ে দেখেছিলেন মিস্টার পারফেকশনিস্ট। মাতালের অভিনয় বাস্তবসম্মত করতে পুরো এক লিটার ভদকা এক বসায় শেষ করেছিলেন ‘থ্রি ইডিয়টস’ তারকা আমির। পরে তাঁর কী অবস্থা হয়েছিল কে জানে!

এই ছবির ‘পারদেশি পারদেশি’, ‘আয়ি হো মেরে জিন্দেগি মে’, ‘পুছো জারা পুছো’ বেশ জনপ্রিয় কয়েকটি গান। সম্পাদনার আগে ‘রাজা হিন্দুস্তানি’ ছবির দৈর্ঘ্য ছিল প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা। কিছু দৃশ্য ও একটি গান ছেঁটে ফেলে পরে সেটিকে তিন ঘণ্টায় আনা হয়। এখানে শিশুশিল্পীর চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন এই প্রজন্মের নায়ক কুনাল খেমু। তখন কুনালের বয়স ছিল মাত্র ১২ বছর। এখন তিনি এক মেয়ের বাবা।