এবারের বিপিএলে হোটেলে থাকা ক্রিকেটারদের জন্য ‘ডিজে পার্টি’ নিষিদ্ধ

ক্রিকেট খেলাধুলা প্রধান খবর

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসর ৪ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে। এই বিপিএলে যেসব হোটেলে খেলোয়াড়রা থাকবেন সেসব হোটেলে কোনো প্রকার ডিজে পার্টি করা যাবে না। হোটেলগুলোতে থাকতে হবে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা। থাকতে হবে সিসি ক্যামেরা, আর্চওয়ে, লাগেজ স্ক্যানারসহ মেটাল ডিটেক্টর ব্যবস্থা।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া এসব নির্দেশনা দিয়েছেন। বুধবার সকালে বিপিএল আয়োজন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত এক সমন্বয় সভায় তিনি এই নির্দেশনা দেন। সভায় বিসিবি ও বিপিএল ফ্রাঞ্চাইজির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশ ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সঙ্গে সমন্বয় করে সব ফ্রাঞ্চাইজিদের কাজ করতে হবে। খেলা চলাকলীন সময় টিম হোটেলে বহিরাগত গেস্ট খেলোয়াড়দের সঙ্গে দেখা করতে হোটেলের রুমে যেতে পারবেন না। প্রয়োজনে হোটেল লবিতে দেখা করতে পারবেন।

ফ্রাইঞ্চাইজি ও বিসিবির উদ্দেশে কমিশনার বলেন, বিপিএল চলাকালীন সময়ে দলগুলোর কর্মী বা সমর্থকরা কোনোভাবে মাঠে শোডাউন করতে পারবে না। টিকিট ছাড়া কোনো লোক স্টেডিয়ামে প্রবেশ করতে যেন না পারে সেজন্য বিসিবিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। সিট প্লানিং অনুযায়ী দর্শকদের নিজ নিজ আসনে বসতে হবে। নিজ আসন ছাড়া অন্য জায়গায় বসা যাবে না। এতে শৃঙ্খলা নিশ্চিত থাকবে।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, টিকিট কালবাজারি ঠেকাতে প্রস্তুত থাকবে ডিবি ও পোশাকধারী পুলিশ। খেলা ও অনুশীলনের পূর্বে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ (এসবি) ও র্যাব দিয়ে ভেন্যু স্যুইপিং করা হবে। সব ক্ষেত্রে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হবে।

উল্লেখ্য, ৪ নভেম্বর থেকে বিপিএল খেলা শুরু হয়ে শেষ হবে ১৩ ডিসেম্বর। তিন পর্বে এই খেলা হবে। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৪ নভেম্বর থেকে ৮ নভেম্বর হবে সিলেট পর্ব। চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ২৪ নভেম্বর থেকে ২৯ নভেম্বর হবে চট্টগ্রাম পর্ব। শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম মিরপুরে ১১ নভেম্বর থেকে ২১ নভেম্বর এবং ২ ডিসেম্বর থেকে ১২ ডিসেম্বর হবে ঢাকা পর্ব। ১২ ডিসেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে বিপিএল এর ফাইনাল ম্যাচ। রিজার্ভ ডে হিসেবে ১৩ ডিসেম্বরকে রাখা হয়েছে।