ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে ২২ ক্রিকেটারের তালিকায় নাম নেই মাশরাফির!

ক্রিকেট খেলাধুলা

টেষ্ট খেলতে চান মাশরাফি।  এমনটা নিয়ে চারদিকে যখন জোর গুঞ্জন, তখনই সেই গুঞ্জনে পানি ঢেলে নিল একটি খবর।  সেই খবরটি দেখে আবার অতি বড় মাশরাফি ভক্ত এমনকি টাইগার ক্রিকেটের ভক্তরাও বিস্ময়ে বিমূঢ় হয়ে যেতে পারেন।

কি সেই খবর?

টেষ্ট খেলতে চাওয়া মাশরাফির টেষ্ট খেলা তো বহু দূরের পথ।  উল্টো ওয়েস্টইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষীক সিরিজেই মাশরাফির খেলা তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।  অন্যান্য বিদেশ সফরের মতো ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরকে সামনে রেখে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়

যে সরকারি অনুমতি (গভর্নমেন্ট অর্ডার বা জিও) পত্র দিয়েছে, সেখানে নাম নেই মাশরাফির।

জান যায়, সেই অনুমতি পত্রে যে ২২জন ক্রিকেটার আছেন, তাদের তালিকায় নাম নেই মাশরাফির।  এটা কি ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের ভুল? নাকি বিসিবির ভুল? নাকি মাশরাফিকে বাদ দিয়েই এই সফরে যাওয়ার ইচ্ছা?

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির নাম না থাকার কারণ অজ্ঞাতই থেকে গেছে।  এদিকে কেউ কেউ হয়ত ভাবছেন, যেহেতু আগে টেস্ট তারপর ওয়ানডে এবং সবশেষে টি টোয়েন্টি সিরিজ- তাই হয়ত মাশরাফির নাম রাখা হয়নি।

এমন প্রশ্ন উঠলেও সেটা অবান্তর মনে হবে।  কারণ যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে যে সরকারি অনুমতি দেয়া হয়েছে তার শিরোনামে পরিষ্কার বলা হয়েছে, ‘আগামী ২৪ জুন থেকে ৬ আগস্ট ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠেয় দুটি টেস্ট, তিনটি একদিনের (ওডিআই) এবং তিনটি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট সিরিজে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশ দলের ২২ সদস্যর সরকারি অনুমতি পত্র। ’

তবে এটা সত্য যে, জিও-তে শুধু ২২ ক্রিকেটারের নাম আছে।  কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়ন, ফিজিও এবং ম্যানেজার হিসেবে কারো নাম নেই সেখানে।  সুতরাং, সেখানে একটা ফাক-ফোঁকর রয়েই গেছে।

এমনও হতে পারে, হয়তো যেহেতু দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের পর ওয়ানডে সিরিজ।  তাই পরে কোচ, সহকারী কোচ, বোলিং কোচ, ফিজিও, ট্রেনার এবং ম্যানেজারের সাথে মাশরাফিরও জিও করানো হবে।  তবে প্রাথমিকভাবে যে ২২ ক্রিকেটারের নামে সরকারি অনুমতি পত্র এসেছে, সেখানে মাশরাফির নাম নেই।