করোনা: ঝুঁকি থাকলে বিমানবন্দর থেকেই সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর

বাংলাদেশ

বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের বাংলাদেশে সংক্রমণ ও বিস্তৃতি ঠেকাতে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সেনাবাহিনীকে দু’টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার পরিচালনার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

সেনাবাহিনীর তত্ত্ববধানে কোয়ারেন্টাইন কর্মসূচির অংশ হিসেবে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের প্রয়োজনীয় স্ক্রিনিং শেষে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নির্বাচিত ব্যক্তিদের বিমানবন্দরে প্রয়োজনীয় ইমিগ্রেশন কার্যক্রম শেষে সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হবে।

হস্তান্তরের পর এসব যাত্রীদের সেনাবাহিনীর সার্বিক তত্তাবধানে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে স্থানান্তর, ডিজিটাল ডাটা এন্ট্রি কার্যক্রম, কোয়ান্টাইন সেন্টারে থাকাকালীন সময়ে আহার, চিকিৎসা, বাসস্থান ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে।

রাজধানীর আশকোনায় হজ ক্যাম্প ও উত্তরার দিয়াবাড়ী সংলগ্ন রাজউক অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে স্থাপিত কোয়ারেন্টাইন সেন্টার পরিচালনার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সেনাবাহিনীকে।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা এবং চিকিৎসা দেওয়ার কাজে ব্যবহারের জন্য টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা মাঠ সেনাবাহিনীর হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। ওই মাঠের নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে সেনাবাহিনী।

অন্যদিকে আইএসপিআর এর পরিচালক লেঃ কর্ণেল আবদুল্লাহ ইবনে জায়েদ জানান: এই সেন্টারগুলোতে ইতোমধ্যে দু’টি নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। সবাইকে নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের টেলিফোন নম্বর এ যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

আশকোনা হজ ক্যাম্প: ০১৭৬৯০১৩৪২০, ০১৭৬৯০১৩৩৫০। উত্তরা দিয়াবাড়ি ক্যাম্প: ০১৭৬৯০১৩০৯০, ০১৭৬৯০১৩০৬২।