কান্নায় জর্জরিত কন্ঠে যা বললেন স্মিথ!

ক্রিকেট খেলাধুলা

বল বিকৃত করার ঘটনায় ধিকৃত ও বিপর্যস্ত অস্ট্রেলিয়ার সদ্য বরখাস্তকৃত অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ওই ঘটনার সব দায়দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়ে বলেছেন, তিনি আশা করছেন যে একদিন তিনি সম্মান ফিরে পাবেন, তাকে ক্ষমা করা হবে।

বৃহস্পতিবার সিডনিতে ফিরে সংবাদ সম্মেলনে বারবার কান্নায় ভেঙে পড়েন।

তিনি বলেন, অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক হিসেবে আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, পুরো দায়দায়িত্ব আমার। আমি বিচার বিশ্লেষণে ভুল করেছি। আমি দায়দায়িত্ব গ্রহণ করছি। এটি নেতৃত্বের ব্যর্থতা, আমার নেতৃত্বের ব্যর্থতা।

তিনি বলেন, এই ঘটনায় যদি কিছু ভালো থাকে, তা হলো অন্যদের জন্য এটি শিক্ষার বিষয়। আমি আশা করছি, এটি পরিবর্তনের শক্তিতে পরিণত হবে। এ জন্য সারা জীবন আমি অনুতাপে ভুগব।

আবার দেশকে নেতৃত্ব দেয়ার আশা নিয়ে স্মিথ বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার নেতা হিসেবে সব দায় আমি নিজের কাঁধে নিচ্ছি৷অন্য কারোর উপর দোষ চাপাতে চাই না৷আমি বড় ভুল করেছি৷এটা আমার জীবনে সবচেয়ে বড় ভুল৷এর জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী৷আশা করি আমাকে একদিন ক্ষমা করে দেয়া হবে৷তবে এর জন্য সারা জীবন আমার অনুতাপ হবে৷যদিও ঘটনার ভালো দিক হলো, আশা করি এখান থেকে অন্যরা শিক্ষা নেবে৷দেশকে নেতৃত্ব দেয়াটা গর্বের৷আশা করি আবার দেশকে নেতৃত্ব দেয়ার সুযোগ পাব৷’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন ‘স্যান্ডপেসার গেট’ কাণ্ডের নায়ক৷দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়ে চোখে পানি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন ছাড়তে বাধ্য হন স্মিথ৷

এদিনই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মাঝপথে দেশে ফিরে আসেন বল বিকৃতি কাণ্ডে তিন মাথা স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার এবং ক্যামেরন ব্যানক্রফট৷বুধবারই এই তিন ক্রিকেটারকে নির্বাসিত করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷