কুমিল্লা যেন ‘মিনি’ বাংলাদেশ দল

ক্রিকেট খেলাধুলা

তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস। সদ্য সমাপ্ত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে এটাই ছিল বাংলাদেশ জাতীয় দলের ব্যাটিং অর্ডারের প্রথম তিনটি নাম। এর সঙ্গে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, রকিবুল হাসান ও অলক কাপালিকে যোগ করে নিন। দেখবেন বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং অর্ডার হয়ে যাবে। এ ছাড়া দলে রয়েছেন আরাফাত সানি, আল আমিন হোসেন। দলটাকে মিনি বাংলাদেশ বলতে কারো আপত্তি থাকার কথা নয়!

এবারের আসরে সবচেয়ে শক্তিশালী দল গড়েছে কুমিল্লা। তামিম-ইমরুলদের সঙ্গে বিদেশি ক্রিকেটার হিসেবে রয়েছেন মারলন স্যামুয়েলস, ডোয়াইন ব্রাভো, জস বাটলার, হাসান আলী, ফাহিম আশরাফ, শোয়েব মালিক, রশিদ খানরা।

পরিসংখ্যান বিচার করলে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ডোয়াইন ব্রাভোর চেয়ে বড় অলরাউন্ডার আর নেই। দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন শোয়েব মালিক। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে সিরিজ সেরা হয়েছেন এই পাকিস্তানি ক্রিকেটার। সেই সিরিজে হাসান আলী ও ফাহিম আশরাফ দুর্দান্ত খেলেছেন। টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের হয়ে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছেন ফাহিম আশরাফ। এ ছাড়া গত ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লিগে প্রায় একাই ত্রিনবাগো নাইট রাইর্ড্সকে শিরোপা জিতিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের কলিন মুনরো। রশীদ খান ও মোহাম্মদ নবী বিভিন্ন দেশের লিগগুলোতে দাপিয়ে খেলছেন। এ ছাড়া ফখর জামান, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, রুম্মান রইসরা তো টি-টোয়েন্টিতে দারুণভাবে পরীক্ষিত।

২০১৫ সালে বিপিএলে শিরোপা জিতেছিল কুমিল্লা। সেবার দলটি বাংলাদেশ দলকে লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, আবু হায়দার রনির মতো তারকা ক্রিকেটার উপহার দিয়েছিল। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ইমরুল কায়েস (৩১২) এ ছাড়া আবু হায়দার রনি নেন ২১ উইকেট। গত আসরে অবশ্য ভালো করতে পারেনি কুমিল্লা। ১২ ম্যাচে মাত্র পাঁচটি জয় পায় দলটি। তবে এবার আবার শিরোপার স্বপ্ন দেখছে ভিক্টোরিয়ান্সরা। আর এই রকম শক্তিশালী একটি দল নিয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখাটা খুব স্বাভাবিক নয় কি?

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস
স্থানীয় : তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, আল আমিন হোসেন, আরাফাত সানি, অলক কাপালী, মেহেদী হাসান, মেহেদী হাসান রানা, এনামুল হক, রকিবুল হাসান।

বিদেশি : মার্লন স্যামুয়েলস, ডোয়াইন ব্রাভো, জস বাটলার, হাসান আলী, ফাহিম আশরাফ, ইমরান খান জুনিয়র, শোয়েব মা