কৃষ্ণসার হত্যা মামলায় যে সাজা হল সালমান খানের

বলিউড বিনোদন

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

প্রায় দুই দশক ধরে চলে আসা কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলার রায় প্রদান করা হয়েছে আজ।  এতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন সালমান খান।  বণ্যপ্রাণ সংরক্ষণ আইনের ৯-এর ধারায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বলিউডের এ তারকা।  তবে খালাস পেয়েছেন অন্যান্য আসামিরা।

রায়ের আগে জানা গিয়েছিল এই মামলায় সালমান দোষী সাব্যস্ত হলে ছয় বছরের সাজা হতে পারে।  কিন্তু রায় ঘোষণার পর সালমানের ঠিক কী সাজা হয়েছে এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি ভারতীয় গণমাধ্যম। যদিও এরই মধ্যে সালমানের সাজা কমানোর

জন্য তার আইনজীবীর তরফে আর্জি জানানো হয়েছে।  সম্প্রতি ৫ এপ্রিল রায়ের তারিখ নির্ধারণ করেছিলেন যোধপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।  রায়কে সামনে রেখে আদালতের নির্দেশ মতো উপস্থিত ছিলেন এ মামলার অভিযুক্ত অভিনেতা সালমান খান, সাইফ আলী খান, অভিনেত্রী টাবু, সোনালী বেন্দ্রে, নীলম ও দুশ্যন্ত সিং।

উল্লেখ্য, ১৯৯৮ সালে হিন্দি সিনেমা হাম সাথ সাথ হ্যায়’র  শুটিং চলাকালীন যোধপুরের কাছে কঙ্কনী গ্রামে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকারের অভিযোগ ওঠে সালমানের বিরুদ্ধে।  পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে মামলাও দায়ের হয়।  এসময় সাইফ আলী খান, সোনালী বেন্দ্রে, টাবু ও নীলমকেও এ মামলায় অভিযুক্ত করা হয়। সালমানের বিরুদ্ধে দুইটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার অভিযোগ ছিল।  এ অভিনেতার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের ৫১ ধারা এবং অন্যান্যদের বিরুদ্ধে ৫১ ও ১৪৯ ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছিল।

এর আগে ২০০৬ সালে এ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল সালমানকে।  কয়েকদিন জেলেও ছিলেন এ অভিনেতা।  কিন্তু পরবর্তী সময়ে জামিনে মুক্তি পান তিনি।