‘কোচ নির্বাচন বিসিবির ব্যাপার’: অধিনায়ক মাশরাফি

ক্রিকেট খেলাধুলা প্রধান খবর
পদত্যাগ করলেও সহসাই বাংলাদেশে আসছেন চন্ডিকা হাতুরাসিংহে। বাংলাদেশের কোচ হিসেবে তার বিদায়টা আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত হয়নি এখনো। তারপরও বাংলাদেশের কোচ বিষয়ে আলোচনা থেমে নেই। গতকাল ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেছেন, ক্রিকেটারদের দায়িত্ব মাঠে খেলা। কোচ প্রসঙ্গে ক্রিকেটারদের সঙ্গে বিসিবির আলোচনার প্রয়োজন দেখেন না তিনি।
হাতুরাসিংহে থাক বা নতুন কেউ দায়িত্ব নিক তাতে ক্রিকেটারদের একটাই দায়িত্ব দেখতে পাচ্ছেন মাশরাফি। তা হলো পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়া। এবং পরিবর্তনকে ইতিবাচকভাবে নেয়া।
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৬ বছর পার করে দিয়েছেন মাশরাফি। নিজের ক্যারিয়ারে কখনোই তিনি দেখেননি খেলোয়াড়দের সঙ্গে আলোচনা করে জাতীয় দলের কোচ নির্বাচন করছে বিসিবি।
গতকাল মাদক বিরোধী প্রচারণা সম্পর্কিত এক অনুষ্ঠানে বিসিবির সঙ্গে ক্রিকেটারদের আলোচনার বিষয়ে মাশরাফি বলেছেন, ‘আজ পর্যন্ত কোনো কোচ যখন নেওয়া হয়েছে গত ১৬-১৭ বছরে আমার অন্তত মনে পড়ে না আমাদের সঙ্গে আলোচনা করে নেওয়া হয়েছে। এখনো তাই বলব, মনে করছি না আমাদের সঙ্গে আলোচনার প্রয়োজন আছে। আমাদের দায়িত্ব মাঠে খেলা। যিনিই আসুন তার পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলা। কে আসবে সেটাও ব্যাপার নয়। যিনি আসবেন তার সাক্ষাতকার নেবে নিশ্চয়ই বিসিবি, তাকে চিন্তা করেই নেওয়া হবে।’
হাতুরাসিংহে না থাকলে একটা পরিবর্তন আসবে। মাশরাফি মনে করেন, পরিবর্তনের সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে। তিনি বলেন, ‘যখন একটা পরিবর্তন আসে তখন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেটা মেনে নিতে হবে। অবশ্যই গত তিন বছর হাথুরুর অধীনে খেলে তার পরিকল্পনা, দল কেমন হবে অনেকটাই মুখস্থ হয়ে গিয়েছিল। তিনি যদি না থাকেন নতুন কোচ যে আসবে তার সঙ্গে যত তাড়াতাড়ি মানিয়ে নেওয়া যায়।’
দেড় বছর পরই ২০১৯ বিশ্বকাপ। তার আগে কোচের এ পরিবর্তনকে ইতিবাচকভাবে দেখতে বলছেন মাশরাফি। ওয়ানডে অধিনায়ক বলেছেন, ‘২০১৯ বিশ্বকাপ বেশি দূরে নয়। ২০১৮ সালে বিদেশে অনেক দ্বিপক্ষীয় সিরিজ আছে। সেগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে বিশ্বকাপের জন্য। একটা পরিবর্তন তো হবেই। পরিবর্তনটা যে নেতিবাচক দিকে যাবে তা নয়। আমাদের চেষ্টা করতে হবে এটা ইতিবাচক দিকে নেওয়ার।’
বিভিন্ন সময় বিদেশি কোচদের সঙ্গে কাজ করেছেন দেশীয় কোচরা। যদিও মাশরাফি বিসিবির সিদ্ধান্তের দিকেই তাকিয়ে আছেন।
বিপিএলে একাদশে পাঁচ বিদেশি ক্রিকেটার খেলায় পারফরম্যান্সের সুযোগ কমে আসছে স্থানীয় ক্রিকেটারদের। তারপরও জহুরুল ইসলাম অমি, আবু জায়েদ রাহী, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের প্রশংসা করেছেন নড়াইল এক্সপ্রেস।
তিনি বলেন, ‘টপঅর্ডারে যারা ব্যাটিং করছে, প্রতিটি দলই বিদেশি ব্যাটসম্যানদের নামাতে চাচ্ছে। বিজয় দেখেন ওপরে ব্যাটিংয়েরই সুযোগ পাচ্ছে না। আরও অনেকে আছে। যখন সুযোগ পাচ্ছে তখন ইনিংস লম্বা করার পরিস্থিতি থাকছে না। গিয়েই শট খেলতে হচ্ছে। ক্রিকেটে এসব ছোটখাটো বিষয় অনেক গুরুত্ববহন করে। কাল জহুরুল যে ইনিংসটা খেলেছে, সেই ম্যাচের নায়ক। রিয়াদ কয়েকটা ছোট ছোট কার্যকারী ইনিংস খেলেছে। খুলনার জায়েদ রাহি খুব ভালো বোলিং করছে। একেবারে যে হচ্ছে না, তা নয়। তবে সুযোগ কমে যাচ্ছে। প্রতিটি দল বিদেশি খেলোয়াড়দের ব্যবহার করতে চাচ্ছে। আমাদের সুযোগ তাই কমে যাচ্ছে।’