ক্রিকেটারের চেয়ে ভালো মানুষ গড়াতেই আগ্রহ দ্রাবিড়ের- পারিপার্শ্বিক কারণেই

ক্রিকেট খেলাধুলা

রাহুল দ্রাবিড় নিজে ছিলেন এক নিখাদ ভদ্রলোক। খেলোয়াড়ি জীবনে বিশুদ্ধ ক্রিকেটীয় ব্যাকরণ মেনে ব্যাটিং করতেন দেখে ‘দ্য ওয়াল’ তকমা পেয়েছিলেন। বিশুদ্ধ জীবন যাপন করেছেন মাঠের বাইরেও। ক্রিকেট ছেড়ে কোচিংয়ে এসে এই মুহূর্তে দারুণ উপভোগ করছেন। দুই বছর ধরে ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ ও ‘এ’ দলের কোচ হিসেবে তিনি একটি কাজ করছেন খুব যত্নের সঙ্গেই। সেটি হচ্ছে ভালো মানুষ গড়া।
কেবল ভালো ক্রিকেটার হলেই চলে না, একই সঙ্গে হতে হয় ভালো মানুষও। ক্রিকেটে এই মুহূর্তে সততার ব্যাপারটি একজন খেলোয়াড়ের জন্য খুবই জরুরি বিষয় হয়ে পড়েছে পারিপার্শ্বিক কারণেই। দ্রাবিড় এ ব্যাপারগুলো মাথায় রেখেই চালিয়ে যাচ্ছেন কোচিংয়ের দায়িত্ব, ‘আমি ক্রিকেট কোচিংটা গত দুই বছর ধরে অসম্ভব উপভোগ করছি। এটা আমার জন্য শিক্ষণীয় এক অভিজ্ঞতা।’
দ্রাবিড় বলেছেন, ‘আমি দীর্ঘদিন ক্রিকেট খেলেছি বলেই যে আমি কোচিংয়ে এসেছি—এমনটা ভাবার কোনো কারণই নেই। দীর্ঘদিন খেলার ব্যাপারটা কিন্তু কোচ হওয়ার পূর্বশর্ত নয়। ক্রিকেট খেলাটা এক জিনিস আর কোচ হিসেবে ছাত্রদের দেখভাল করাটা পুরোপুরি অন্য একটা বিষয়। কোচ হিসেবে আমার মূল লক্ষ্য কেবল ক্রিকেটেই নয়, আমি ছেলেদের ভালো মানুষ হিসেবে গড়তে চাই। আমি আমার দলে কোচ হিসেবে এমন একটা পরিবেশ তৈরি করতে চাই, যেখান থেকে তারা নিজেদের সামর্থ্যে পুরোপুরি বিকশিত হতে পারে।’