ক্রিকেটে ফিরছেন ক্লার্ক, তবে…

ক্রিকেট খেলাধুলা

অস্ট্রেলীয় সংবাদমাধ্যমে একটা গুজব বেশ ডালপালা মেলছিল গতকাল রোববার। অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে ফিরছেন সাবেক ক্রিকেটার মাইকেল ক্লার্ক—খবরটা ছিল এমনই। তবে সাবেক এই অধিনায়ক নিজেই জানিয়ে দিয়েছেন, ক্রিকেটার নয়, বরং মেন্টর হিসেবেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) সঙ্গে কাজ করতে চান তিনি।

অসি দৈনিক ‘ডেইলি টেলিগ্রাফ’ মারফত জানা গিয়েছিল, অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের জন্য যেকোনো কিছু করতে রাজি ক্লার্ক। ক্লার্কের ক্রিকেটে ফেরার আলোচনাটা স্বাস্থ্যবান হয় এই খবরেই। এবার নিজেই টুইট বার্তায় সেই সহায়তা যে শুধুই মেন্টর হিসেবে করতে চান জানালেন ক্লার্ক।

টুইটারে অস্ট্রেলিয়া অনূর্ধ্ব-১৪ দল নিয়ে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করে বাকি সব খবরকে উড়িয়ে দিয়ে ক্লার্ক লিখেছেন, ‘খবরটা ভিত্তিহীন। পরিষ্কার করে বলছি, জেমস সাদারল্যান্ডকে আমি ক্রিকেটার হিসেবে ফিরে আসতে কোনো আনুষ্ঠানিকপত্র দিইনি। বরং অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের শুভাকাঙ্ক্ষী হিসেবে যেকোনোভাবে সাহায্য করতে আমি রাজি। হতে পারে সেটা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের মেন্টর হিসেবেও।’

বল টেম্পারিং ইস্যুতে বর্তমানে একটু নড়বড়ে অবস্থায়ই আছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট। কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং করার দায়ে অসি দলের অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। দুই সিনিয়র খেলোয়াড় নিষিদ্ধও হয়েছেন এক বছরের জন্য। সঙ্গে টেম্পারিংয়ের মূল নায়ক ক্যামেরন ব্যানক্রফটও থাকছেন না নয় মাসের জন্য।

ও রকম অবস্থায় ক্লার্কের ফিরে আসার অমন গুজবও আশ্বাস জুগিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ানদের। তবে নিজেই সেই খবরকে ‘ভিত্তিহীন’ বলেছেন ক্লার্ক। জুনে তাই নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে ইংলিশদের বিপক্ষে তাদের মাঠেই ওয়ানডের লড়াইয়ে নামার অপেক্ষায় অস্ট্রেলিয়া দলে ক্লার্ক থাকছেন না, এমনটা নিশ্চিত।

৩৭ বছর বয়স্ক ক্লার্ক শেষ ২০১৫ সালের অ্যাশেজে নেমেছিলেন মাঠে। অবশ্য ইংলিশদের বিপক্ষে তাদের মাঠে সে সিরিজে বাজেভাবে হেরেছিল অসিরা। হারের দায় নিয়ে অ্যাশেজ শেষেই ক্রিকেটকে বিদায় বলেছিলেন ক্লার্ক।