ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর গোলে জিতলো রিয়াল

খেলাধুলা ফুটবল

২০১২ সালের পর থেকে রিয়াল মাদ্রিদের মাঠে জেতেনি মালাগা। শনিবার সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এসে সেই রেকর্ড ভাঙার চেষ্টাই যেন করেছিল তারা। কিন্তু পারেনি। আগের ১৬ বারের মতো এবারও পায়নি তারা জয়ের দেখা। কঠিন চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করে রিয়াল লা লিগার ম্যাচটি জিতেছে ৩-২ গোলে। দুইবার এগিয়ে গিয়েও ম্যাচে পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় পড়েছিল গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর গোল শেষ পর্যন্ত জেতালো তাদের।

১৩ ম্যাচে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে রিয়াল। তাদের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে বার্সেলোনা। ৩০ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে ভ্যালেন্সিয়া। রবিবার হবে লা লিগার শীর্ষ দুই দলের লড়াই।

মালাগার বিপক্ষে রিয়াল মাদ্রিদের শুরুটা দেখে বোঝা গেলো, অ্যাপোয়েল নিকোশিয়ার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগে উড়ন্ত জয়ের রেশ এখনও কাটেনি তাদের। একের পর এক আক্রমণে তারা তটস্থ করে রেখেছিল অতিথিদের। প্রথম মিনিটে লুকাস ভাসকেস এবং ষষ্ঠ ও অষ্টম মিনিটে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো অল্পের জন্য গোলের সুযোগবঞ্চিত হলেন। তবে রিয়াল এগিয়ে গেছে তাড়াতাড়ি। ৯ মিনিটে রোনালদোর হেড গোলবারে লেগে ফিরে এলে খালি জালে বল পাঠান করিম বেনজিমা।

তবে ১৮ মিনিটে মালাগা ফিরে আসে ম্যাচে। কেকোর কাছ থেকে বল পেয়ে ডিয়েগো রোলান ফেরান সমতা। অবশ্য তিন মিনিট যেতে আবার এগিয়ে যায় রিয়াল। টনি ক্রুসের পাস থেকে ২১ মিনিটে ২-১ করেন কাসেমিরো। বেনজিমা সহজ সুযোগ নষ্ট করে দ্বিতীয় গোল করতে পারেননি। ৩২ মিনিটে নিখুঁত ফিনিশিংয়ের অভাবে ব্যর্থ হন ফরাসি স্ট্রাইকার। বিরতিতে যাওয়ার এক মিনিট আগে রবার্তো জিমিনেজ দুর্দান্ত চেষ্টায় রুখে দেন রোনালদোকে।

বিরতি থেকে ফিরে আবার মালাগা সমতা আনে। ৫৮ মিনিটে কেকোর অ্যাসিস্টে গঞ্জালো ক্যাস্ত্রো করেন ২-২। ৬৪ মিনিটে রাফায়েল ভারানের হেডে গোলপোস্ট থেকে ছয় গজ দূরে দাঁড়িয়ে থেকেও বল স্পর্শ করতে পারেননি রোনালদো। অবশ্য ৭৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকেও অল্পের জন্য গোলবঞ্চিত হতে বসেছিলেন তিনি। কিন্তু জিমিনেজ তার স্পট কিক রুখে দিলেও ফিরতি শটে পর্তুগিজ তারকা লক্ষ্যভেদ করেন। মালাগার বিপক্ষে ১৭ বারের দেখায় এটি ছিল তার ১৭তম গোল।

৮৭ মিনিটে আরেকবার গোল উদযাপন করেছিলেন রোনালদো। কিন্তু সেটা ছিল সীমিত সময়ের জন্য। অফসাইডে বাঁশি বাজিয়ে গোলটি বাতিল করে দেন ম্যাচ রেফারি।