জানেন কি আর্জেন্টিনার ইতিহাসে কতবার ৬ গোল হজম করেছে?

খেলাধুলা ফুটবল

ছিলেন না একাদশে, কিন্তু মাঠের পাশ থেকে দেশের এমন হার দেখতে হয়েছে আর্জেন্টিনার প্রাণ ভোমরা লিওনেল মেসিকে। চোখের সামনে স্পেনের বিপক্ষে ৬-১ গোলের ব্যবধানে হেরে গেছে আর্জেন্টিনা।

মাদ্রিদের ওয়ান্দা মেট্রোপলিটানো স্টেডিয়ামে স্পেনের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে চোট পাওয়া মেসিকে ছাড়াই খেলতে নামে আর্জেন্টিনা। অথচ এই ম্যাচ থেকেই সেরা একাদশ বাছাই করতে হবে কোচ হোর্হে সাম্পাওলিকে। কিন্তু এই ম্যাচের পর সেটা নির্ধারণ বেশ কঠিনই হয়ে যাবে।

অন্যদিকে হুলেন লোপেতেগুইয়ের অধীনে টানা ১৮ ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে স্পেন। জুন থেকে শুরু হতে যাওয়া রাশিয়া বিশ্বকাপে অন্যতম ফেবারিট স্পেন নিজেদের কোনোভাবেই পিছিয়ে রাখতে রাজি নয়। মঙ্গলবার দিবাগত রাতের ম্যাচে ইসকোর হ্যাটট্রিকের পাশাপাশি আরও গোল করেছেন ডিয়েগো কস্তা, লাগো আসপাস ও থিয়াগো আলকানতারা। আর্জেন্টিনার পক্ষে একমাত্র গোলটি করেছেন নিকোলাস ওটামেন্ডির।

জয় নিশ্চিত করার পর স্পেনের ফুটবলাররা। ছবি:সংগৃহীত

জয় নিশ্চিত করার পর স্পেনের ফুটবলাররা। ছবি:সংগৃহীত

ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ হারিয়েছে আর্জেন্টিনা। ৮ মিনিটে ফাঁকা পোস্ট পেয়েও বল সেখানে পাঠাতে পারেননি গঞ্জালো হিগুয়েন। এর মাত্র ৪ মিনিট পরই ডিয়েগো কস্তার গোলে এগিয়ে যায় স্পেন।

ইসকো গোলের খাতা খোলেন ম্যাচের ২৭ মিনিটে। রিয়াল মাদ্রিদ সতীর্থ এসেনসিওর নিচু ক্রসটিকে দারুণভাবে কাজে লাগান তিনি। ৩৯ মিনিটে এভার বানেগার কর্নার থেকে আর্জেন্টিনাকে গোল এনে দেন ওটামেন্ডি। ৫২ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন ইসকো। ৫৫ মিনিটে ইসকো ও আসপাসের সহায়তায় স্পেনকে ৪-১ গোল এগিয়ে নেন থিয়াগো। ৭৩ মিনিটে স্কোরলাইন ৫-১ করেন আসপাস। এর পরের মিনিটেই হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন ইসেকা।

এমন হার আর্জেন্টিনার ফুটবল ইতিহাসে বড় কলঙ্ক হয়েই থাকবে। ৬-১ গোলে হার দেশটির ফুটবল ইতিহাসে তৃতীয়বারের মতো বড় ব্যবধানে হার। এর আগে ১৯৫৮ বিশ্বকাপে চেকোশ্লোভাকিয়ার বিপক্ষে একবার এবং ২০১০ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে বলিভিয়ার কাছে আরও একবার ৬-১ গোল হেরেছিল আর্জেন্টিনা।