জায়গা নেই, চিনের ৪০ শতাংশ মানুষ শৌচকর্ম সারেন মাঠে

আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য

‘চিন নিন চিনে, শৌচকর্ম দিয়ে’। স্মার্ট চিনের বিশাল সংখ্যক মানুষ এখনও শৌচকর্ম করেন জনসমক্ষে। বিশ্বের কাছে চিনের পরিচয় তারা ঘোর কমিউনিজমে বিশ্বাসী। সামরিক শক্তিতে বিশাল। আর টেকনোলজি আবিস্কারে তারা প্রায় সেরা। তারা নাকি সব কারখানায় বানিয়ে নেন, পারলে মানুষও বানাতে পারেন তারা। এমন যারা ‘স্মার্ট’ তাদের নগ্ন দিকটাও জেনে নিন। বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশ চিন প্রকাশ্যে শৌচকর্মের তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

লাল চিনে সবাই স্মার্ট। ‘ভোর হল দোর খোলো’ রবে মাঠের দিকে ছোটার দৃশ্য শুধু ভারতের নয় এই তালিকায় রয়েছে চিনও। পরিসংখ্যান বলছে ভারত এই তালিকায় ‘সেরা-র স্থান ধরে রাখলেও চিনও পিছিয়ে নেই। তারা রয়েছে দুই নম্বরে। ছে।

চিনে অন্তত ৩৪ কোটি ৩৯ লক্ষ মানুষ প্রকাশ্যে শৌচকর্ম করেন। সেদেশে ৪০ শতাংশ মানুষ এখনও শৌচাগার থেকে বঞ্চিত। এই তালিকার তৃতীয় স্থানে আফ্রিকার সবচেয়ে জনবহুল দেশ নাইজেরিয়া। সারা বিশ্বে তিনজনের মধ্যে একজন ব্যক্তি শৌচাগার থেকে বঞ্চিত।

ভারত সরকার এই বিষয়ে নিজ স্বপক্ষে তথ্য পেশ করে বলা হয়েছে, স্বচ্ছ ভারত অভিযানে ২০১৪ সালের অক্টোবর থেকে এ বছরের নভেম্বরের মধ্যে দেশজুড়ে ৫ কোটি ২০ লক্ষ বাড়িতে শৌচাগার তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু প্রকাশ্যে শৌচকর্ম বন্ধ করতে হলে ভারতকে এখনও অনেকদূর যেতে হবে। ওয়াটারএইড ইন্ডিয়ার চিফ এগজিকিউটিভ ভি কে মাধবন বলেছেন, স্বচ্ছ ভারত প্রকল্পের মাধ্যমে শৌচাগারের ক্ষেত্রে দ্রুত উন্নতি করছে ভারত।