জিম্বাবুয়ের মাটিতে পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়ার ত্রিদেশীয় সিরিজ

ক্রিকেট খেলাধুলা

জুলাইতে হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি ত্রিদেশীয় সিরিজ। যেখানে জিম্বাবুয়ে ছাড়াও অংশ নিবে পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া। ১ জুলাই থেকে ৮ জুলাই পর্যন্ত হবে এই ত্রিদেশীয় সিরিজ। ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলবে পাকিস্তান।

ত্রিদেশীয় ও ওয়ানডে সিরিজের বিষয়টি নিশ্চিত করে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফয়সাল হাসনাইন বলেন, ‘কয়েক মাসের আলাপ-আলোচনা শেষে আমরা আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে জিম্বাবুয়ে। ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে পাকিস্তানের বিপক্ষে বুলাওয়ে ও কুইন্স স্পোর্টস ক্লাব মাঠে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ খেলবে। পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার মতো বড় দলের বিপক্ষে খেলাটা আমাদের জন্য লিটমাস টেস্ট। যেহেতু আমরা শক্তিশালী একটি জিম্বাবুয়ে দল গড়তে যাচ্ছি। যারা সেরা সেরা দলের বিপক্ষে লড়তে ও জিততে সক্ষম হবে।’

রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে প্রত্যেকটি দল চারটি করে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে। শীর্ষ দুটি দল ফাইনাল খেলবে।

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের সূচি :

১ জুলাই : জিম্বাবুয়ে-পাকিস্তান
২ জুলাই : অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান
৩ জুলাই : জিম্বাবুয়ে-অস্ট্রেলিয়া
৪ জুলাই : জিম্বাবুয়ে-পাকিস্তান
৫ জুলাই : অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান
৬ জুলাই : জিম্বাবুয়ে-অস্ট্রেলিয়া
৮ জুলাই : ফাইনাল।

পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে জিম্বাবুয়ে। তবে ঘরের মাঠে টেস্ট আয়োজন ব্যয়সাপেক্ষ হওয়ায় আপাতত এই ফরমেট থেকে নিজেদের গুটিয়েই রাখছে দলটি।

গত বছর অক্টোবরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই টেস্ট খেলার পর আর টেস্ট সিরিজ আয়োজন করছে না জিম্বাবুয়ে। তার বদলে ৫০ ওভারের ক্রিকেটেই বেশি মনোযোগ দিচ্ছে তারা। ২০১৯ বিশ্বকাপের জন্য এই ফরমেটকে ভীষণ গুরুত্ব দিয়ে এগুচ্ছিল দলটি। কিন্তু বাছাইপর্ব থেকেই বাদ পড়তে হয় তাদের।

এই ব্যর্থতার জেরে চাকরি হারান জাতীয় দলের কোচ হিথ স্ট্রিক থেকে শুরু করে যুবদলের স্টিফেন ম্যাঙ্গোঙ্গোও। নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয় গ্রায়েম ক্রেমারকে। নির্বাচক কমিটির প্রধান তাতেন্দা তাইবুও পদ ধরে রাখতে পারেননি।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ হবে যথাক্রমে ১৩, ১৬, ১৮, ২০ ও ২২ জুলাই।