দুই ওপেনারেই সিলেটের ১০০ পার

ক্রিকেট খেলাধুলা

বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সকে ম্যাচ জেতানোর আধেক কাজ তো তাদের দুই ওপেনিং ব্যাটসম্যানই করে দিয়ে যাচ্ছেন বারবার! প্রথম দুই ম্যাচেই উপুল থারাঙ্গা ও আন্দ্রে ফ্লেচারের জুটি বড় পার্টনারশিপ করে পরে ব্যাট করে সিলেটকে জেতানোয় বড় ভূমিকা রেখেছেন। মঙ্গলবার রাজশাহী কিংসের জয়ে ফেরার ম্যাচেও চিত্র একই। টস হেরে আগে ব্যাট করছে হোমটিম। আর ব্যাট হাতে টানা তিন ম্যাচে সিলেটকে দারুণ জুটি উপহার দিয়েছেন লঙ্কান থারাঙ্গা ও ক্যারিবিয়ান ফ্লেচার।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলছে বিপিএলে এদিনের দ্বিতীয় ম্যাচ। যেখানে নাসির হোসেনের দলের শুরুটা দারুণ। এই প্রতিবেদন লেখার সময় ১০১ রানের সময় ফ্লেচার রান আউট হয়েছেন। ৩০ বলে ৩ ছক্কা ও ৫ চারে ৪৮ রান দিয়ে গেছেন। ১১ ওভারে সিলেটের সংগ্রহ ওই ১ উইকেটেই ১০৫। টানা তৃতীয় ফিফটি তুলে নিয়েছেন থারাঙ্গা। ৩৫ বলে ৫০ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। সাব্বির রহমান তার সাথে যোগ দিয়ে আছেন ১ রানে।

আগের দুই ম্যাচেই ফিফটি করেছেন থারাঙ্গা। প্রথমটিতে ফ্লেচারও। এই দুই ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারানোর চমক উপহার দিয়েছিলেন ১২৫ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপ গড়ে। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে সিলেট কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে বুঝিয়ে দেয়, তারা ফ্লুক হয়ে আসেনি। সেই ম্যাচে থারাঙ্গা-ফ্লেচারের জুটি ছিল ৭৩ রানের। এমন দুজন ওপেনার নিয়মিত জ্বলতে থাকলে আর কি লাগে!

বর্তমান ও সাবেক চ্যাম্পিয়নকে প্রথশ দুই ম্যাচে হারিয়েছে সিলেট। আর রাজশাহী হেরেছে রংপুর রাইডার্সের কাছে। সিলেট নিজেদের দর্শকের সামনে আরো একটি জয় তুলে নেওয়ার জন্য যে ভিত্তি দরকার তা দারুণ ভাবেই গড়ছে। এদিন ফ্লেচার শুরু থেকে ছিলেন আগুন মুডে। অন্যপ্রান্তে খুব ছাড় দেননি থারাঙ্গাও। তাতেই ৫ ওভারে ৪৯ রান আসে। ১০০ হয়ে যায় ১০.২ ওভারে। টস হেরে নাসির বলেছিলেন, এখানে ১৭০-১৮০ করলে জেতা যাবে।