ধাওয়ানের স্ট্যাম্প ভাঙলেন রুবেল, খেলাটি লাইভ দেখুন

বাংলাদেশ দলে এক পরিবর্তন

আগের দুই ম্যাচে একই একাদশ নিয়ে খেলা বাংলাদেশ দলে এনেছে একটি পরিবর্তন। খরুচে বোলিং করা তাসকিন আহমেদ বাদ পড়েছেন। দলে ফিরেছেন আবু হায়দার। বাঁহাতি এই পেসার দুই বছর আগে সবশেষ দেশের হয়ে খেলেছিলেন।

বাংলাদেশ দল: মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, আবু হায়দার, নাজমুল ইসলাম অপু, মেহেদী হাসান মিরাজ।

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। সিরিজে আগের চার ম্যাচেই টস জেতা অধিনায়ক প্রথমে বোলিং করেছেন। চার ম্যাচেই জিতেছে লক্ষ্য তাড়া করা দল।

খেলাটি লাইভ দেখুন এখানেঃ

ভারতঃ ৭০/১

ওভারঃ ১০

রোহিতঃ ২৯

ধাওয়ানঃ ৩৫ আউট বোল্ড রুবেল

টি-টোয়েন্টির বাংলাদেশি ব্র্যান্ড

কেবল একটি টি-টোয়েন্টি জয়। তবে সেই জয় এমন বৃত্ত ভাঙা জয় যে সেটি নিয়ে চলছে নানারকম বিশ্লেষণ। জয়ের পর সেদিনের ক্রিকেটকে তামিম ইকবাল বলেছিলেন বাংলাদেশি ব্র্যান্ড। আলোচনার ঢেউ তাতে আরও উত্তুঙ্গ। ত্রিদেশীয় সিরিজে তুমুল আলোচনায় এখন বাংলাদেশি ব্র্যান্ডের টি-টোয়েন্টি।

টি-টোয়েন্টির দাবি মেটানোর জন্য বাংলাদেশ দলে শুরুতে নেই ঝড় তোলার মত কেউ, মাঝে কিংবা নেই বিস্ফোরক কোনো ব্যাটসম্যান। এই সংস্করণে নিজেদের ছাপটা রাখতে পারেনি বাংলাদেশ, নেই নিজস্ব কোনো ঘরানা। নিজেদের একটি ব্র্যান্ড গড়ার ভাবনাটিই তাই দুঃসাহসী।

তবে সেই দুঃসাহসই দেখিয়েছে দলের সিনিয়র ক্রিকেটাররা। নিজস্বতা তৈরির সেই তাড়না থেকে বাংলাদেশি ব্র্যান্ডের জন্ম। হতাশার দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার পর সামনে এগোনেই কেবল সম্ভব। সেই চ্যালেঞ্জটা নিয়েছে দল।

ক্রিকেটাররা অনুভব করেছেন, নিজেদের ধরনটা বুঝে, নিজেদের সামর্থ্যের সীমানায় থেকেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে জয় করতে হবে। বুধবার এই বাংলাদেশি ব্র্যান্ডের আরেকটি পরীক্ষা। চ্যালেঞ্জ জানাতে অপেক্ষায় ভারত। আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়।

দুই দলের প্রথম দেখায় ৬ উইকেটে হারে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশকে ভাবাচ্ছে বৈচিত্রময় ভারতীয় বোলিং

ত্রিদেশীয় সিরিজে ভারতের দুটি জয়েই ম্যাচ-সেরা দুই পেসার। ভালো করছেন আরেক পেসারও। বোলিংটা দারুণ হচ্ছে ভারতের দুই স্পিনারেরও। ম্যাচ জিততে হলে ভারতের এই বৈচিত্রময় বোলিং আক্রমণ সামলাতে হবে, অনুভব করছেন মাহমুদউল্লাহ।

দুই দলের প্রথম লড়াইয়ের ভাগ্য গড়ে দিয়েছিল ভারতীয় বোলিংই। বোলিং দিয়ে ম্যান অব দা ম্যাচ হয়েছিলেন পেস বোলিং অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর। বাঁহাতি পেসার জয়দেব উনাদকাট উইকেট নিয়েছিলেন তিনটি। কিপটে বোলিংয়ে এক উইকেট ছিল আরেক পেসার শার্দুল ঠাকুরের।

সোমবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভারতের জয়ের ভিতও গড়ে দিয়েছিলেন বোলাররাই। ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা শার্দুল। অন্য দুই পেসারও নেন একটি করে উইকেট।

ভারতের ৫ বোলারই নজর কেড়েছেন বৈচিত্রময় বোলিংয়ে। বিশেষ করে গতির হেরফেরে। স্পিনাররা যেমন ব্যাটসম্যানদের ভোগাচ্ছেন গতি বৈচিত্রে; উনাদকাটের কাটার ও শার্দুলের ‘নাকল বল’ বিভ্রান্তিতে ফেলছে ব্যাটসম্যানদের।

প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে কেবল ১৩৯ রান তুলতে পেরেছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচের আগে তাই মাহমুদউল্লাহর ভাবনা ভারতের বোলিং সামলানো নিয়ে।

খেলাটি সরাসরি দেখতে নিচে ক্লিক করুন

Comments

comments

Leave A Reply

Your email address will not be published.