নেইমারকে ক্যান্টোনার প্রশ্ন, ফ্রান্সে এলে কেন?

খেলাধুলা ফুটবল

নেইমারের মতো বিশ্বসেরা ফুটবল ফ্রেঞ্চ লিগে নাম লিখিয়েছেন। একজন ফরাসি হিসেবে এতে তার খুশিই হওয়ার কথা। কিন্তু খুশির চেয়ে এরিক ক্যান্টোনা বিস্মিতই হয়েছেন বেশী। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক এই ফরাসি তারকা বুঝতেই পারছেন না, নেইমার কেন এই আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিলেন!

হ্যাঁ, বার্সেলোনার মতো বিশ্বসেরা ক্লাব ছেড়ে নেইমারের পিএসজিতে যোগ দেওয়াটাকে আত্মঘাতী সিদ্ধান্তই মনে করেন ক্যান্টোনা। তার মতে, পিএসজিতে যোগ দিয়ে বড় ভুল করেছেন নেইমার! তার সময়ে বিশ্বের সেরা ফরোয়ার্ডদের একজনই ছিলেন ক্যান্টোনা।

ঈশ্বর অমিয় ফুটবল প্রতিভা দিয়েই পৃথিবীতে পাঠিয়েছিলেন তাকে। মদ, নারী, নাইটক্লাবের প্রতি এতোটা টান না থাকলে অনুমিতভাবেই জায়গা করে নিতে পারতেন অন্য উচ্চতায়। মাঠে প্রতিভার ঝলক দেখিয়ে যতটা আলোচিত হয়েছেন, তার চেয়েও বেশী খবর হয়েছেন মদ, নারী, নাইটক্লাব আর নানা বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে। ফলে অকালেই থেমে গেছে তার ক্যারিয়ার।

কিন্তু ৫১ বছর বয়সী ক্যান্টোনার ফুটবল মস্তিস্ক এখনো উর্বর। ভালো করেই বুঝেন, কোন খেলোয়াড়ের জন্য কোন সিদ্ধান্ত ভালো। নেইমারের মতো একজন অবিশ্বাস্য প্রতিভাবান খেলোয়াড়ের ফ্রেঞ্চ লিগের মতো কম আকর্ষণীয় লিগে নাম লেখানোটা একদমই পছন্দ হয়নি ক্যান্টোনার।

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপাকে পাখির চোখ করেই ২২২ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে নেইমারকে কিনে এনেছে পিএসজি। নেইমারকে কেন্দ্র করে ফরাসি ক্লাবটি হতে চায় বিশ্বসেরা ক্লাব। বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখের মতো বিশ্বসেরা ক্লাবগুলোর সমানে সমানে টেক্কা দিয়ে জিততে চায় চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা।

নেইমারও বলেছেন, পিএসজির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জয়টাই তার প্রধান লক্ষ্য। কিন্তু এই যুক্তিটা একদমই মানতে পারছেন না ক্যান্টোনা। তার কথা, শুধু চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জয়টাই একজন বিশ্বসেরা খেলোয়াড়ের জন্য সব কিছু নয়।

ক্যান্টোনা বললেন, একজন খেলোয়াড়কে তার সামর্থের সবচেয়ে বড় প্রমাণটা দিতে হয় লিগে। প্রতিনিয়তই লড়াই করতে হয় সেরাদের সঙ্গে। ক্যান্টোনা তাই বললেন, ফ্রেঞ্চ লিগের মতো কম আকর্ষণীয় লিগে নেইমার সেই সুযোগটা পাবেন খুব কম। তার যুক্তি, ফ্রেঞ্চ লিগে পিএসজি বাদে, বাকি সবদলগুলোই সাধারণ মানের। সেই সাধারণ মানের দলগুলোর সঙ্গে লড়াই করে নেইমার কিভাবে নিজেকে বিশ্বসেরা প্রমাণ করবেন?

ইয়াহু স্পোর্টসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই প্রশ্নটাই তুলেছেন বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের শিরোমণি ক্যান্টোনা, ‘আপনার বয়স যখন মাত্র ২৫ এবং আপনি খেলেনও ব্রাজিল এবং বার্সেলোনার মতো ক্লাবে। আমি বিস্মিত যে, কেন আপনি লিগ ওয়ানে যোগ দিয়ে অ্যামিনেস, গ্যাঁগোর মতো দলের বিপক্ষে খেলবেন?’

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রসঙ্গ টেনে ক্যান্টোনা যোগ করেছেন, ‘চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কথা বলছেন? চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সে কয়টা ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে, বড়জোর ১০টা ম্যাচ। সত্যিই আমি বুঝতে পারছি না, কেন সে ফ্রান্সে খেলতে এল?’