পাতানো ফাঁদে পা দিল নেইমার!

খেলাধুলা ফুটবল

পূর্বপরিকল্পনায় পা দিয়ে ফেঁসেছেন পিএসজির ব্রাজিলীয়ান তারকা নেইমার। ডিফেন্ডার আন্দ্রে-ফ্র্যাঙ্ক জাম্বো অ্যাঙ্গুইসার মন্তব্য তো তাই বলছে। লিগ ওয়ানের ম্যাচে নেইমারকে পূবপরিকল্পনা মোতাবেক ফাঁদে ফেলেছেন অলিম্পিক মার্শেই। সেই পরিকল্পনা তারা সফলও হয়েছে। লাল কার্ড দেখে মাঠ ছেড়েছেন নেইমার। এই পরিকল্পনার দুই নেপথ্য-নায়ক ফ্লোরিয়ান থুয়াভিন ও অ্যাঙ্গুইসা। মার্শেই ডিফেন্ডার জানিয়েছেন, ‘আমার ওপর নেইমারকে ঠেকানোর দায়িত্ব বর্তেছিল। কোচ বলেছিলেন, “নেইমার মেজাজ হারাতে পারে।” আমি আর থুয়াভিন দুজন মিলেই ট্যাকলটা করি। নেইমার দেখি ঠিকই মেজাজ হারিয়ে বসল।’ সেই ম্যাচে আগেই হলুদ কার্ড দেখেছিলেন নেইমার। এরপর থেকেই নেইমারকে ‘লক্ষ্যবস্তু’ বানায় মার্শেই। নেইমারকে ঠেকাতে বড় কোনো ফাউলের পরিকল্পনা অবশ্য ছিল না বলেই জানিয়েছেন অ্যাঙ্গুইসা। তবে তাঁকে ‘বিরক্ত’ করার ছক কাটা হয়েছিল। তাঁকে বারবার ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। সেই ফাঁদে নেইমার পা ও বাড়িয়েছেন। ২-১ গোলে পিছিয়ে থেকেও সেই ম্যাচে পিএসজি অবশ্য হার এড়িয়েছে এডিনসন কাভানির অসাধারণ এক ফ্রিকিকে। কিন্তু নেইমারের লাল কার্ডটা ম্যাচের ‘কালো দাগ’ হয়েই থাকছে প্যারিস-জায়ান্টদের জন্য। ফুটবলের চোরা পথগুলোয় যে নেইমার বারবার পা হড়কাচ্ছেন—ভক্তদের ভাবনার কারণ এটিই। ফুটবলে এমন কৌশল নতুন নয়। ২০০৬ বিশ্বকাপের ফাইনালে জিদানকে উত্ত্যক্ত করে ফায়দা লুটেছিলেন মার্কো মাতেরাজ্জি। গত মৌসুমের এফএ কাপ ফাইনালে চেলসির ডিয়েগো কস্তাকে একরকম পরিকল্পনা সাজিয়েই আটকে রেখেছিলেন আর্সেনালের পার মার্টেসেকার ও রব হোল্ডিং। সামনের দিনগুলোতে মনস্তাত্ত্বিক লড়াইয়ে জেতার কৌশলটাও ভালোভাবেই রপ্ত করতে হবে নেইমারকে।