প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে পেসারদের মধ্যে

ক্রিকেট খেলাধুলা

এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ব্যাট হাতে খুব একটা ভালো খেলতে পারছেন না স্থানীয় ক্রিকেটাররা। বেদেশি ক্রিকেটারদের দাপটে কিছুটা উজ্জ্বল রাজশাহী কিংসের ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক। দেশের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে বড় আসরে সে তুলনায় যথেষ্টই উজ্জ্বল স্থানীয় পেসাররা। চিটাগং ভাইকিংসের তাসকিন আহমেদ, ঢাকা ডায়নামাইটসের আবু হায়দার রনির পর এবার খুলনা টাইটানসের আবু জায়েদ রাহিও বল হাতে সাফল্য পাচ্ছেন।

তিন ম্যাচ খেলে রাহি পেয়েছেন ছয় উইকেট। তার মধ্যে আজ চিটাগংয়ের বিপক্ষে পেয়েছেন চার উইকেট। বিপিএলে উইকেট সংগ্রহের ক্ষেত্রে তিনি আছেন দ্বিতীয় স্থানে। সমান সংখ্যক উইকেট নিয়ে তৃতীয় স্থানে তাসকিন। তরুণ এই পেসার শেষ দুই ম্যাচে তিনটি করে উইকেট পান। আর পাঁচ উইকেট নিয়ে রনি আছেন পঞ্চম স্থানে।

বাংলাদেশের পেসার  এই ভালো খেলার কী কারণ হতে পারে? আজ রোববার ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে রাহি বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছে স্থানীয় পেসারদের মধ্যে খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। যে কারণে সাফল্য আসছে। পেসারদের এই সাফল্য দেশের ক্রিকেটের জন্যই ভালো।’

ব্যক্তিগত সাফল্যেও খুশি তরুণ এই পেসার। বলেছেনও, ‘আমার কাছে ভালো লাগছে দলের জয়ে অবদান রাখতে পারছি বলে। আমার চেষ্টা থাকবে এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে।’

অবশ্য দলগত লড়াইটাও বেশ ভালোই হচ্ছে। এখন পর্যন্ত সবচেয়ে ভালো অবস্থানে সিলেট সিক্সার্স। পাঁচ ম্যাচ খেলে ছয় পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে রয়েছে তারা। এরপর ঢাকা ডায়নামাইটস ও খুলনা টাইটানস চার পয়েন্ট করে নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে। আর কুমিল্লা, রাজশাহী, চিটাগং ও রংপুরের পয়েন্ট দুই।