প্রথম দিনেই অলআউট শ্রীলঙ্কা

ক্রিকেট খেলাধুলা

ব্যাটিং সহায়ক পিচ দেখে ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। যদিও মাঠে এর যথাযথ প্রয়োগ করতে পারেনি লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। প্রথম দিনে রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবিন্দ্র জাদেজার স্পিনে ২০৫ রানে গুটিয়ে গেছে সফরকারীরা। জবাবে ভারতও দিন শেষের আগে ১১ রানে ১ উইকেট হারিয়েছে। তারপরেও ১১ উইকেট পতনের দিনে এগিয়ে আছে রয়েছে স্বাগতিকরাই।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে ভালোভাবেই বোলিংটা ঘষামাজা করে নিয়েছে ইশান্ত শর্মা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবিন্দ্র জাদেজারা। কলকাতা টেস্টে উইকেটবিহীন ছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবিন্দ্র জাদেজা। দ্বিতীয় টেস্টে অবশ্য সেই খরা কাটিয়েছেন দুজনেই। ৬৭ রানে ৪ উইকেট নিয়েছেন অশ্বিন। ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন ইশান্ত শর্মা ও জাদেজা।

নাগপুরে শুরুটা দেখে শুনে করেছিলেন লঙ্কান দুই ওপেনার সামারাবিকরামা ও করুনারত্নে। ৪ ওভারে ২০ রান তুলে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছিলেন। তবে পঞ্চম ওভারে সব কিছু পাল্টে দেন এই টেস্টে জায়গা পাওয়া ইশান্ত শর্মা। পূজারার ক্যাচ বানিয়ে বিদায় দেন সামারাবিকরামাকে। এরপর আসা যাওয়ার মিছিল ছিল লঙ্কান ব্যাটিংয়ে। একমাত্র ওপেনার করুনারত্নে ও অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমাল ছাড়া কেউ ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। করুনারত্নেকে ৫১ রানে ইশান্ত শর্মা এলবিডাব্লিউ করলে ধরে খেলার জন্য শুধুমাত্র ছিলেন চান্ডিমাল। বাকিরা ছিলেন আসা যাওয়ার মিছিলে।

অধিনায়ক চান্ডিমালের আগে দিকবিলা ২৪ রানে হাল্কা প্রতিরোধ দিয়েছিলেন। তাকেও বিদায় দেন রবিন্দ্র জাদেজা। এরপর অশ্বিন লঙ্কান অধিনায়ক চান্ডিমালকে ৫৭ রানে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেললে পরিণতির দিকেই যেতে থাকে লঙ্কানদের ইনিংস। শেষ দিকে ২০৫ রানে লাকমল ও রঙ্গনা হেরাথ ফিরে গেলে এই স্কোরেই শেষ হয় শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস।

জবাবে অবশ্য ভারতের শুরুটাও ভালো হয়নি। চতুর্থ ওভারে ফিরে গেছেন লোকেশ রাহুল। ৭ রানে ব্যাট করতে থাকা এই তারকাকে বোল্ড করেন গামাগে। ক্রিজে আছেন মুরালি বিজয় (২) ও চেতেশ্বর পূজারা (২)। ভারত প্রথম ইনিংসে এখনও পিছিয়ে ১৯৪ রানে।