ফাঁস হওয়া ছবির যে ব্যাখ্যা দিলেন মিথিলা

আলোচিত সংবাদ ঢালিউড বিনোদন

নির্মাতা ইফতেখার ফাহমির সঙ্গে তোলা অভিনেত্রী ও সমাজকর্মী মিথিলা রশীদের দুটি অন্তরঙ্গ ছবি সম্প্রতি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ফাহমির ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি হ্যাক করে ছবিগুলো প্রকাশ করা হয়। তা নিয়ে খবর ছেপেছে দেশের প্রায় প্রতিটি মিডিয়া। বিষয়টিকে মানহানি উল্লেখ করে মঙ্গলবার সাইবার ক্রাইম বিভাগে একটি মামলা করেছেন মিথিলা। ওইদিন রাতেই ফেসবুকে লম্বা স্ট্যাটাস দিয়ে সেকথা প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী।

মিথিলা তার বক্তব্যে লিখেছেন, আমি এখানে যা ঘটেছে তা ব্যাখ্যা করছি না, বরং সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও মিডিয়ায় প্রকাশ হওয়া আমার কিছু ব্যক্তিগত ছবি, কিছু বাস্তব, কিছু বানোয়াট বিষয় সম্পর্কে আমার অবস্থান পরিষ্কার করছি। যা কিছু দুষ্টু মানুষের দ্বারা আমার খ্যাতি নষ্ট করার জন্য প্রকাশ করা হয়েছে।

আমরা যখন ২০১৭/২০১৮ সালে ডেটিং করছিলাম সেই সময়ের ছবি। এখানে আমি ‘ডেটিং’ শব্দটির উপরে জোর দিতে চাই, যার অর্থ আমরা একটি সম্পর্কে ছিলাম। তবে এতটা নির্বোধ হওয়া উচিত নয় যে, দুজন লোক ডেটিং করলে এই প্রযুক্তির যুগে বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অন্তরঙ্গ মুহূর্ত এবং ছবিগুলো শেয়ার করতে হবে। আমি আমার গোপনীয়তা রক্ষা করতে পারিনি।

‘যাহোক, আমি ছবিগুলো প্রকাশের জন্য লজ্জিত নই, বরং লজ্জাবোধ করছি যে দেশের কিছু বিবেকহীন মানুষ আমার খ্যাতি নষ্ট করার জন্য ছবিগুলো প্রকাশ করেছে এবং এটির থেকে সাবস্ক্রিপশন এবং সংবাদ বিক্রি করার স্বাধীনতা গ্রহণ করেছে। আমি লজ্জিত যে, কয়েকটি নিউজ পোর্টাল আমার সম্মতি ছাড়াই এই খবর প্রকাশ করেছে। আমি কখনই তাদের সঙ্গে কোনো কথা বলিনি বা বক্তব্য দিইনি।

আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে, আমার সম্মান ও মর্যাদা আমার শরীরে বা আমার ব্যক্তিগত ছবিগুলোতে নেই। আমি কঠোর পরিশ্রম, সৃজনশীলতা ও শিক্ষার মাধ্যমে জীবনের সবকিছু অর্জন করেছি। কিন্তু কিছু অপরাধী চুরি করে আমার ছবিগুলো প্রকাশ করেছে এবং আমার অতীতের ব্যক্তিগত মুহুর্তগুলো নেতিবাচকভাবে তুলে ধরেছে।

আমি শান্ত থাকার জন্য এবং আমার ইতিবাচক শক্তির উপর ফোকাস করার জন্য ২৪ ঘণ্টা বিরতি নিয়েছি। যাতে আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরে আসতে পারি। এমন পরিস্থিতি আমাকে দুর্বল করে না, বরং আগের চেয়ে আরও শক্তিশালী করে তোলে।

সাইবার অপরাধ বিভাগে আমি আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করেছি। আমি আইসিটি আইনে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়াধীন। সেখানে কর্তৃপক্ষের সহায়তায় আমি অপরাধীদের পরিচয় দেব। হ্যাকার এবং সাইবার শিকারি দ্বারা শিকার হওয়া সব মানুষের পক্ষে লড়াই করব। এই পরিস্থিতিতে আমার পরিবার, বন্ধুবান্ধব এবং সহকর্মীদের মধ্যে যারা সঙ্গে আছেন তাদের ধন্যবাদ জানাই।

কিছুদিন আগে কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে মিথিলার সম্পর্ক নিয়ে সরগরম ছিল সোশ্যাল মিডিয়া। সব জায়গায় চলে মিথিলা চর্চা। সৃজিতকে তিনি বিয়ে করবেন বলেও খবর ছড়ায়। আর সম্প্রতি ছড়ায় নির্মাতা পাহমির সঙ্গে নায়িকার পুরনো সম্পর্কের ছবি। তবে এসব ঘটনায় কোথাও মিথিলার কোনো বক্তব্য ছিল না। সবই ছিল একতরফা।