ফিক্সিংয়ের পরে ভারতীয় ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে ড্রাগ গ্রহণের অভিযোগ

ক্রিকেট খেলাধুলা প্রধান খবর
পুনেতে ভারতীয় পিচ কিউরেটরের বিরুদ্ধে ফিক্সিংয়ের অভিযোগের রেশ কাটতে না কাটতেই নিষিদ্ধ ড্রাগ গ্রহণের অভিযোগ উঠেছে এক ভারতীয় ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি এ তথ্য প্রকাশ করেছ।
বিশ্ব ডোপ-বিরোধী সংস্থার রিপোর্টে বলা হয়েছে, বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) মোট ১৫৩ জন ক্রিকেটারকে ডোপ টেস্ট করাতে পাঠিয়েছিল ২০১৬ সালে। এর মধ্য থেকে একজনের ডোপ টেস্টের রেজাল্ট পজিটিভ এসেছে। তার মূত্রের নমুনায় নিষিদ্ধ মাদকের উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছ। যে সময় ডোপ টেস্টে করানো হয়েছিল, সে সময় রঞ্জি ট্রফি, দলীপ ট্রফি, আইপিএল ও ইরানি ট্রফি‘র মতো সবরকম প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটেও অংশ নিয়েছিল সংশ্লিষ্ট ওই ক্রিকেটার। তবে ডোপ টেস্টে পজিটিভ আসা ক্রিকেটারের নাম এখনও প্রকাশ করেনি।
এদিকে, ডোপ টেস্টে ধরা পড়া ক্রিকেটারের নাম জানতে চাওয়া হলে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড তা এড়িয়ে যায়। তবে বোর্ডের এক উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা জানান, ওয়াডা থেকে এখনও পর্যন্ত কোনও লিখিত রিপোর্ট পায়নি তারা। যেহেতু তারাও জানেন না, কোন ক্রিকেটারের রেজাল্ট পজিটিভ এসেছে, সেজন্য এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়।
এর আগে ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সাবেক ক্রিকেটার প্রদীপ সাঙ্গোয়ানের বিরুদ্ধেও নিষিদ্ধ মাদক সেবনের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছিল। ২০১৩ সালের আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলার সময় ডোপ পরীক্ষায় ধরা পড়েন সাঙ্গোয়ান। এবার আরও এক ভারতীয় ক্রিকেটার ডোপ পরীক্ষায় ব্যর্থ হলেন।