ফ্লেচার-থারাঙ্গায় এবারও সিলেটের দুর্দান্ত শুরু

ক্রিকেট খেলাধুলা প্রধান খবর

 

৭ ওভারে সিলেটের সংগ্রহ ৬৮ রান কোন উইকেট ছাড়া। 

আন্দ্রে ফ্লেচার ও উপুল থারাঙ্গা। সিলেট সিক্সার্সের ওপেনিং জুটি। প্রথম ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়েছেন ১২৫ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়ে। পরের ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে জয়ে তাদের পার্টনারশিপ ৭৩ রানের। দুই ম্যাচেই ফিফটি লঙ্কান থারাঙ্গার। সেই দুজন রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে আগুন ছড়াচ্ছেন। মঙ্গলবার বিপিএলের দ্বিতীয় ম্যাচের এই প্রতিবেদন লেখার সময় ৫ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৪৯ রান সিলেটের। ফ্লেচার ২৮ ও থারাঙ্গা ১৯ রানে ব্যাট করছেন।

এই ম্যাচে সিলেট দুটি পরিবর্তন নিয়ে খেলথে নেমেছে। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুভাগত হোম ও ক্রিসমার সান্টোকিকে দলে রাখেনি। নিয়েছে কামরুল ইসলাম রাব্বি ও দারুশকা গুনাথিলাকাকে। রাজশাহী দলে ঢুকেছেন নিহাদুজ্জামানের জায়গা নিয়েছেন হোসেন আলী। টস জিতেছে রাজশাহী। প্রথম ম্যাচের হারের পর এটা তাদের ফেরার লড়াই। সিলেটকে ব্যাট করতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় তারা। সিলেট অধিনায়ক বলেছেন, ১৭০-১৮০ রান করলেই জেতা যাবে। আর রাজশাহী অধিনায়ক খুশি যে টস জেতায় ডিউ ফ্যাক্টরের সমস্যা নিয়ে পরে বোলিং করতে হচ্ছে না।

সিলেট সিক্সার্স তো উড়ছে। তাদের হোমে শুরু হয়েছে এবারের বিপিএল। আর উদ্বোধনী ম্যাচেই চমক দিয়েছে সিলেট গেলবারের চ্যাম্পিয়ন সাকিব আল হাসানের শক্তিশালী দল ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়ে। ওখানে শুরু। পরের ম্যাচেই শিরোপার দাবিদার সাবেক চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে দেয় তারা। বোঝা যায়, প্রথম জয়টা ফ্লুক ছিল না। টুর্নামেন্ট শুরুর ফেভারিট তালিকায় যারা ছিল না সেই সিলেট সিক্সার্স তাদের প্রথম বিপিএলে আত্মপ্রকাশ করেছে ফেভারিট হিসেবেই।

ড্যারেন স্যামির নেতৃত্বের রাজশাহী কিংস খুব শক্তিশালী দল নয়। তবে দলটির অধিনায়ক দুইবার নেতা হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতানো স্যামি। গত আসরেও বিস্ময় উপহার দিয়েছিল তার দল। সেই দলে অনেক তারকার ছড়াছড়ি না থাকলেও মুশফিকুর রহীম, মুমিনুল হক, রনি তালুকদাররা আছেন। বিদেশির তালিকাটা এখনো খুব জবরদস্ত না হলেও ফেলে দেওয়ার মতো না। সেই তাদের মাশরাফি বিন মুর্তজার রংপুর রাইডার্সের কাছে প্রথম ম্যাচটাতে হারতে হয়েছে। এটাই তাই ফেরার লড়াই মুশফিকদের।