বল আসছে তিনটা, মারবেন কোনটাকে !

ক্রিকেট খেলাধুলা

খেলাধুলার ইতিহাস তো আর আজকের না। তো পরিবর্তন সেই ইতিহাসের পাতায় ঘুরতে ঘুরতে খেলার নানা কৌতুক খুঁজে বের করেছে। এগুলো আসলে লোকমুখে ঘুরে ঘুরে কিংবদন্তিতে পরিণত হওয়া মাঠের হাস্যরস! নানা ভাবে জন্ম এসবের। কোনোটা সত্য। কোনোটা হয়তো মাঠ ও মাঠের বাইরের আড্ডা থেকে তৈরি। তবে এর সবই আসলে খেলোয়াড়দের মুখে থেকে বের হয়ে আসা। আপনার ভুবনটা এই মুহূর্তে গুমোট হয়ে থাকলে কে জানে এগুলোই হয়তো হাসির রাজ্যে নিয়ে যেতে পারে আপনাকে।

ক্রিকেটপ্রেমী মাত্রই জানেন একসময় এই খেলাটা স্রেফ সময় কাটানোর বড় একটা মাধ্যমও ছিল বটে। আর ছিল আমোদের বিষয়। তখন মাঠে আর ড্রেসিং রুমে অ্যালকোহলের বন্যা বয়ে যেতো। তো ইতিহাসের এমনই এক সময়ের কথা। একজন ব্যাটসম্যান প্যাড আপ করে ড্রেসিং রুমে ড্রিংক করে যাচ্ছিলেন। লাঞ্চের পর তার ব্যাটিংয়ে যাওয়ার সময় এলো।

কিন্তু বেচারা ব্যাটসম্যান! অধিনায়ককে বললেন, তার অবস্থা খারাপ। সবকিছু তিনটি করে দেখছেন!

‘ঠিক আছে। সমস্যা নেই।’ ক্যাপ্টেন বললেন, ‘ক্রিজে গিয়ে যখন দেখবে তোমার দিকে তিনটা বল আসবে তখন ঠিক মাঝখানের বলটাকে টার্গেট করে মারবে।’

‘ঠিক আছে’ বলে মাথা ঝাঁকিয়ে হেলতে দুলতে ব্যাটসম্যান গিয়ে স্ট্যান্স নেন। কিন্তু প্রথম বলেই বোল্ড!

ব্যাটসম্যান আবার হেলতে দুলতে ফিরে আসেন ড্রেসিং রুমে। ক্যাপ্টেন একটু উষ্মা প্রকাশ করন।

‘কি হলো? তোমাকে না বললাম মাঝখানের বলটাকে টার্গেট করে মারবে!’

‘হ্যাঁ, তাই তো করলাম।’ ব্যাটসম্যান দুঃখী চেহারা নিয়ে বলেন, ‘কিন্তু মারার সময় যে মাঝখানের না বাইরের দিকের ব্যাটটা চালিয়ে দিয়েছিলাম।’ ব্যাটও যে তার তিনটাই ছিল!