বাজেট কম?

লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য

বাজেট কম? আছে সস্তা পাস্তা, গরিবের খিচুড়ি, কম দামি রাইস বোল, বাজেট বার্গার। ‘বাজেট কম?’ দোকানের নাম, বাকিগুলো খাবারের।

ধানমন্ডি ২৮ নম্বর সড়কে স্বল্প পরিসরে দৃষ্টিনন্দন মোবাইল ফুড কার্ট বাজেট কম? তিন তরুণ শিক্ষার্থী এর উদ্যোক্তা।

ধানমন্ডি ২৮ নম্বর সড়কে ঢুকতে চোখে পড়ে ছোট ছোট জটলা। একজন তরুণী ছোট্ট একটি কার্টে কাবার বানাচ্ছে। ভিড় ঠেলে সামনে যেতেই একজন হাস্যোজ্জ্বল তরুণ অভ্যর্থনা জানাচ্ছে। করছে অর্ডার তদারকি। লোকাল চপস্যুই, ফ্রেঞ্চ বাংলা ফ্রাই—সব খাবার তৈরি হয় চোখের সামনে।

ফুড কার্টটি জুনিয়র ল্যাবরেটরি স্কুলের সামনে। রাস্তার অপর পাড়ে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি। ফলে ক্রেতা-ভোক্তার বড় অংশ শিক্ষার্থী।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশলান ইউনিভার্সিটির ছাত্র শাহরিয়ারজ্জামান জানান, প্রায়ই এই দোকানে খেতে হয়। কারণ ক্লাস শেষ করে বাসায় ফিরতে রাত হয়ে যায়। আবার বাসা থেকে দুপুরের খাবার আনা সম্ভব হয় না। ৬০ টাকায় পাচ্ছেন ‘গরিবের খিচুড়ি’ আর আচারি ডিম ভুনা। আর কম দামি রাইস বোল সঙ্গে চিকেন কারি ১০০ টাকায়।

বাজেট কম-এর কর্নধারও ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির ছাত্রী তাসমিয়া ঋষা। সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগের স্নাতকোত্তর পর্বের এই শিক্ষার্থী জানান, তাঁর স্বপ্ন ছিল একটি ভ্রাম্যমাণ রেস্তোরাঁ করবেন। কারণ রান্না করা তাঁর শখ। খেতে যেমন ভালোবাসেন, তেমনি খাওয়াতে আরেও বেশি ভালোবাসেন। তবে এখন তাঁর লক্ষ্য স্বল্প খরচে ভালো খাবার পরিবেশন। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশির ভাগ ছাত্র বাসার বাইরে থাকার সুবাদে প্রতিদিনই কোনো না কোনো হোটেলে তাদের খেতে হয়। এতে পকেট ফাঁকা হয় ঠিকই, কিন্তু মানসম্মত খাবার সব সময় পাওয়া যায় না। স্বাদ আর সাধ্যের মিল ঘটানো ধানমন্ডি এলাকায় একটু কষ্টকর বটে।

এই উদ্যোগে তাসমিয়া সঙ্গী হিসেবে পেয়েছেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইশতিয়াক আহমেদ ও মুনিম আহমেদকে ।

দোকানটি ধানমন্ডিতে হওয়ায় আশপাশের বাড়ি থেকেও খাবারের অর্ডার পাওয়া যায়। ৬০ টাকার গরিবের খিচুড়ি, ৯০ টাকার লোকাল চপস্যুই, ৬৫ টাকার সস্তার পাস্তার চাহিদা এখানে বেশি। তবে বিকেলে ফ্রেঞ্চ বাংলা ফ্রাইটা বেশি চলে।

আরেক উদ্যোক্তা ইশতিয়াক আহমেদ জানান, পড়াশোনার পাশাপাশি নিজে কিছু করতে পারার আনন্দটাই এখানে বড়। তবে স্বপ্ন এখন ডালপালা মেলছে। বাজেট কমকে চেইনশপ হিসেবে দেখতে চান তাঁরা।