বিধ্বস্ত বিমান থেকে জীবিত উদ্ধার ১৯ যাত্রীর তালিকা

নেপালের কাঠমুন্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান।

 

নেপালে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় ৬৭ যাত্রী ও ৪ ক্রু’র মধ্যে ইতোমধ্যে ৫০ জন নিহত হয়েছেন।

এ দুর্ঘটনায় আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ১৯ জন যাত্রীকে নেপালের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

 

কাঠমুন্ডুর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হওয়া যাত্রীরা হলেন- ইমরানা কবির হাসি, প্রিন্সি দাম, সামিরা বায়জানকার, কবির হোসাইন, মেহেদী হাসান, রিজওয়ানা আব্দুল্লাহ, স্বর্ণা সাইয়েদা কামরুন্নাহার, শাহরিন আহমেদ, মো. শাহীন বেপারী, কিশোর ত্রিপতি, হরি প্রসাদ সুবেদি, দয়ারাম তমরাকার, কিশান পান্ডে, বসন্ত বহরা, আশিষ রঞ্চিত, বিনোদ রাজ পুদয়াল, সনম সাক্ষী, দীনেশ হুমাগেইন এবং রেজওয়ানুল হক।

উল্লেখ্য, সোমবার (১২ মার্চ) দুপুরে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ কাঠমান্ডুর উদ্দেশে রওনা হয়। এরপর বিমানটি কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়। এতে চার ক্রুসহ ৭১ জন আরোহী ছিলেন। এর মধ্যে কমপক্ষে ৫০ জন আরোহী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ২১ জন।

এদিকে, মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) সকালে বিমানটির পাইলট আবিদ সুলতান নেপালের নরভিক হাসপাতালে

মারা গেছেন। ইউএস বাংলার ওই বিমানে ৬৭ জন যাত্রী এবং ফার্স্ট অফিসার পৃথুলা ছাড়াও এতে নাবিলা ও খাজা হোসেন সহ ৪জন ক্রু ছিলেন।

 

Comments

comments

Leave A Reply

Your email address will not be published.