বিপিএলের ফোকাস আরো বাড়াচ্ছেন যাঁরা

ক্রিকেট খেলাধুলা

খুলনা টাইটান্সের এই বাঁহাতি স্পিনারের মতে আসন্ন বিপিএল দেশি বোলারদেরই শুধু নয়, বাড়তি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিচ্ছে ব্যাটসম্যানদেরও।

কারণ, ‘আশা করি এবার মাঠের প্রতিযোগিতা অনেক বেশি হবে। কারণ বিদেশি খেলোয়াড় বেশি আসছে। তাই সবার ফোকাস বিপিএলের দিকেই থাকবে। আমাদের দেশি খেলোয়াড়দেরও অনেক বেশি মনোযোগী হতে হবে। কারণ ওদের অনেক বড় বড় ব্যাটসম্যানকে বোলিং করতে হবে, খেলতে হবে অনেক বড় বোলারকেও। ’

মোশাররফ ‘বড়’ বলতে যাঁদের বুঝিয়েছেন, তাঁদের অনেকে অল্প সময়ের জন্য হলেও এর আগে বিপিএলের শোভা বাড়িয়ে গেছেন। তবে ৪ নভেম্বর থেকে সিলেটে শুরু হতে যাওয়া ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির এ আসরটি এমন অনেককেও পেতে চলেছে, যাঁদের আগে কখনো বিপিএলে দেখাই যায়নি। আর আগে যাঁরা খেলে গেছেন, তাঁদেরও একসময় পাওয়ার আশা ছিল না। কারণ একই সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি হওয়ার কথা ছিল।

এবং এই ফরম্যাটের সবচেয়ে বিস্ফোরক ক্রিকেটাররা সেখানেই খেলবেন ঠিক করায় পেয়েও অনেককে পাবেন না ধরে নিয়েছিলেন বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। এই যেমন ধরা যাক রংপুর রাইডার্সের কথাই। গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি লিগ হলে ক্রিস গেইলকে তাঁরা পেত না। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস পেত না শেন ওয়াটসনকে। বিপিএলের তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স যেমন লুফে নিতে পারত না ডোয়াইন ‘ডিজে’ ব্রাভোকেও। গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি ভেস্তে যাওয়ায় নিঃসন্দেহে শক্তি আরো বাড়ছে এ তিন ফ্র্যাঞ্চাইজির।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেও বিভিন্ন দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি আসরগুলোতে এখনো ওয়াটসনের চাহিদা তুঙ্গে। তাঁর সঙ্গে এবারই প্রথমবারের মতো বিপিএল খেলতে চলেছেন টি-টোয়েন্টির আরো কিছু মহাতারকাও। এঁদের মধ্যে সবার আগে আসবে ব্রেন্ডন ম্যাককালামের নাম। কুড়ি-বিশের চাহিদা মেনে বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে গেইলের সঙ্গে পাল্লা দেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক এ অধিনায়ক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেন না, কিন্তু এখনো বিভিন্ন দেশের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির হটকেক তিনি। ১৫ নভেম্বর থেকে তাঁকে পাচ্ছে রংপুর রাইডার্স। গেইল আসবেন আরো পরে। তবে এ দুজনকেই পাওয়ার সুবাদে বিপিএলের এই আসরেই গেইল-ম্যাককালামকে নিয়ে স্বপ্নের ওপেনিং জুটি দেখা যেতে পারে। একই ফ্র্যাঞ্চাইজি নিশ্চিত করেছে শ্রীলঙ্কান ফাস্ট বোলার লাসিথ মালিঙ্গাকেও। টি-টোয়েন্টিতে মনোযোগী হওয়ার জন্যই তিনি টেস্ট ক্রিকেটকে আগেভাগে বিদায় জানিয়েছেন বলে প্রচার আছে। অবশ্য কার্যকর বোলিং দিয়ে সব সময়ই এই ফরম্যাটের সবচেয়ে সফল বোলারদের একজন হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা মালিঙ্গার জন্যও বিপিএল এবারই প্রথম।

এই প্রথম যাঁরা খেলতে চলেছেন, তাঁদের মধ্যে সবার আগে ঢাকায় পৌঁছে গেছেন জস বাটলার। ইংল্যান্ডের এই মারকুটে ব্যাটসম্যান খেলবেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে। খুলনা টাইটান্সের হয়ে এই প্রথমবারের মতো বিপিএল খেলতে আসছেন সব ফরম্যাটেই পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও। এই আসরে থাকছেন আগেও বিপিএল খেলে যাওয়া পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক মিসবাহ উল হক। তিনি যখন ফিরছেন, তখন বিপিএলে নিয়মিত কুমার সাঙ্গাকারা ও শহীদ আফ্রিদির মতো তারকারা তো থাকছেনই।