বিশাল এক সুখবর পেলো মুস্তাফিজের মুম্বাই!

ক্রিকেট খেলাধুলা

আসরে এখনো নিজেদের সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। রোববার দিন দিনের প্রথম খেলায় কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৩ রানে হারিয়েছে তারা। আর এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের পঞ্চম স্থানে উঠে গেলো তারা, স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখলো প্লে অফের। খারাপ ভাবে শুরু করা মুম্বাইয়ের জন্য আপাতত এটাই সুখবর যে এখনো প্লে অফ খেলার আশা বেচে রইল মুম্বাইয়ের। এটা মুম্বাইয়ের জন্য বিশাল এক সুখবর ।পরের ম্যাচ সব গুলো ‍যতি জিততে পারে এবং কলকাতা যদি পরের ম্যাচ হেরে যায় তাহলে দুই দলের পয়েন্ট সমান হবে ।সে ক্ষেত্রে নিট রান রেটে এগিয়ে থাকবে মুম্বাই ।

ম্যাচে মুম্বাইয়ের দেওয়া ১৮২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপে পরে কলকাতা। দলীয় ২৮ রানের মধ্যেই দুই ওপেনারকে হারায় তারা। ক্রিস লিন বিদায় নেন ১৭ রান করে।

আগের ম্যাচের (চেন্নাইয়ের বিপক্ষে) হিরো শুভম্যান গিল বিদায় নেন ৭ রানে। এরপরে হাল ধরেন রবিন উথাপ্পা এবং নিতিশ রানা। দ্রুত ফিফটি তুলে বিদায় নেন উথাপ্পাও (৩৫ বলে ৫৪ রান)।

তার একটু পরেই হার্ডিক পান্ডিয়ার শিকার হয়ে ফেরেন নিতিশ রানাও (২৭ বলে ৩১ রান)। দলীয় ১৩১ রানের মধ্যে পঞ্চম উইকেট হিসেবে ফিরে যান আন্দ্রে রাসেলও (৯ রান)।

তখনো ম্যাচ জিততে ২০ বলে ৫১ রানের প্রয়োজন ছিল কলকাতার। কিন্তু ক্রমাগত রানরেট বাড়ায় সেটা আর সম্ভব হয়নি। শেষপর্যন্ত ছয় উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান তুলতে সমর্থ হয় কলকাতা। ২৬ বলে পাঁচটি চার আর একটি ছক্কায় ৩৬ রান করে অপরাজিত থাকেন অধিনায়ক দিনেশ কার্তিক।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুটা দারুণ ছিল মুস্তাফিজ বিহীন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের। দলীয় ৯১ রানে প্রথম উইকেট হারায় তারা। ২৮ বলে পাঁচটি চার আর দুটি ছক্কায় ৪৩ রান করে ফিরে যান এভিন লুইস।

এরপরে দ্রুত বিদায় নেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা (১১ রান)। উইকেটে আসেন হার্ডিক পান্ডিয়া। অপরদিকে তখন হাত খুলে খেলছিলেন ওপেনার সুরিয়াকুমার যাদব। আসরে নিজের তৃতীয় ফিফটি তুলে নেন সাবেক এই নাইট রাইডার্স ব্যাটসম্যান। ৩৯ বলে সাতটি চার আর দুটি ছক্কায় ৫৯ করে বিদায় নেন তিনিও।

শেষদিকে হার্ডিক (২০ বলে ৩৫* রান), ক্রুনাল (১৪ রান) আর জেপি ডুমিনির (১৩*) প্রচেষ্টায় চার উইকেটে ১৮১ রানে গিয়ে থামে মুম্বাইয়ের ইনিংস। দুটি করে উইকেট নেন আন্দ্রে রাসেল এবং সুনিল নারিন।