বেরিয়ে এল চুক্তি থেকে ক্রিকেটারদের বাদ দেয়ার আসল কারন

ক্রিকেট খেলাধুলা

গত বছর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ছিলেন ১৬ জন ক্রিকেটার। এবার ছয় জনকে বাদ দিয়েছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এ নিয়ে সমালোচনাও হচ্ছে।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান অবশ্য বলেছেন, এবার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে খেলোয়াড় সংখ্যা কমে গেলেও ভবিষ্যতে তা বাড়তে পারে। শনিবার মিরপুর শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু এশিয়ান সিনিয়র মেনস সেন্ট্রাল জোন আন্তর্জাতিক ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, ‘আমরা খেলোয়াড় সংখ্যা বাড়াতে চাই।

আমার দৃঢ় বিশ্বাস, যারা বাদ পড়েছে, তারা ভালো পারফর্ম করে আবার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে চলে আসবে। বাদ পড়া ক্রিকেটাররা ধারাবাহিকভাবে ভালো খেললে অবশ্যই তাদের নেওয়া হবে। আমরা কখনও বলিনি চুক্তিতে ১০ জনের বেশি থাকবে না। আমরা চাই ১০ না, ৫০ জনের সঙ্গে চুক্তি হোক।’

কেন্দ্রীয় চুক্তির পরিসর ছোট করার ব্যাখাও দিলেন বিসিবি প্রধান, ‘কারও যেন মনে না হয় ক্রিকেটাররা খারাপ খেলেও বোর্ড থেকে মাসে মাসে টাকা নিচ্ছে। এ কারণেই ফর্ম হারানো ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।’

চুক্তি থেকে বাদ পড়েই বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে ১০৭ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেছেন মোসাদ্দেক হোসেন। এ প্রসঙ্গে নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘‘আজকে মোসাদ্দেকের একটা কমেন্ট পড়ছিলাম, ‘কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়েছি বলেই হয়তো সেঞ্চুরি পেয়েছি।’ এটা পড়ে ভালো লেগেছে। ও যদি এভাবে খেলতে থাকে, তাহলে অবশ্যই আবার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ঢুকবে। শুধু মোসাদ্দেক নয়, বাদ পড়া প্রত্যেকে সমান সুযোগ পাবে।’

আগামী মাসে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সভাপতি পদে বসতে যাচ্ছেন নাজমুল হাসান। আগামী আগস্টে দুবাইয়ে বসবে এশিয়া কাপের আসর। এসিসি সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশের হাতে ট্রফি তুলে দেওয়ার স্বপ্ন দেখেন কিনা প্রশ্নে তিনি বলেছেন, ‘স্বপ্ন তো সারা বাংলাদেশের মানুষই দেখে। বাংলাদেশ আগের চেয়ে ভালো পজিশনে আছে, সব দেশই সমীহ করে টাইগারদের। বাংলাদেশের এশিয়া কাপ জয়ের সুযোগ আছে।

অবশ্যই আমি স্বপ্ন দেখি। তবে ক্রিকেট এমন একটা খেলা, যেখানে প্রতি মুহূর্তে রং বদলায়। গত মাসে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে, ২০১২ সালে এশিয়া কাপের ফাইনালে আমরা অল্পের জন্য হেরে গেছি। এ ধরনের অভিজ্ঞতা আমরা আগের চেয়ে বেশি ফেস করছি। আগে ম্যাচুরিটি কম ছিল, এখন বেশি হয়েছে।’

দুবাইয়ে টুর্নামেন্ট, তাই খেলোয়াড়দের আগেই সতর্ক করে দিলেন বোর্ড সভাপতি, ‘এটাও মনে রাখতে হবে, এমন জায়গায় খেলা হবে যেখানে আমরা খুব বেশি খেলার সুযোগ পাই না। আমাদের দুবাইয়ে খেলার তেমন অভিজ্ঞতা নেই। তবু আমি মনে করি, দল এখন যে অবস্থানে আছে, তাতে আমাদের ভালো করা উচিত।