ব্যালন ডি’অর নিয়ে মেসি-রোনালদোর গোপন ফোনালাপ!

খেলাধুলা ফুটবল

একদিন আগে খবর বেরোয়, তথ্য ফাঁস হয়ে গেছে। আগামী মাসে ষষ্ঠ বারের মতো ব্যালন ডি’অর জিততে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ভাইরাল হওয়া মেসির ছবি সংবলিত ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর ডিসেম্বর সংখ্যার প্রচ্ছদই বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দেয় এই গুঞ্জন। কিন্তু একদিন না পেরোতেও ওই গুঞ্জবকে স্রেফ গুঞ্জব বলেই উড়িয়ে দিল ডন ব্যালন। স্প্যানিশ সাপ্তাহিক ক্রীড়া সাময়িকী বরং দাবি করেছে, মেসি নন, পঞ্চম বারের মতো ব্যালন ডি’অর জিততে যাচ্ছেন কদিন আগে ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোই।

আর রোনালদোর সম্ভাব্য ব্যালন ডি’অর জয়ের কথা নাকি মেসি-রোনালদো দুজনেই জানেন। শুধু জানাই নয়। ডন ব্যালনের দাবি, ব্যালন ডি’অর জয় নিয়ে ফোনে দুজনে কথাও বলেছেন তারা। ফোনের সেই আলাপ-চারিতায় ব্যালন ডি’অর বিজয়ী হিসেবে রোনালদোকে আগাম ধন্যবাদও নাকি জানিয়েছেন মেসি!

কৃতজ্ঞ রোনালদোও ধন্যবাদ জানিয়েছেন মেসিকে। সঙ্গে রোনালদো নাকি মেসিকে শুভ কামনা জানিয়েছেন আগামী বছরের ব্যালন ডি’অর জয়ের জন্য! নতুন মৌসুমে উড়ছেন মেসি। এরই মধ্যে বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা লিগে করে ফেলেছেন ১২ গোল।

বিপরীতে রোনালদো করেছেন মাত্র ১ গোল। ডন ব্যালন জানিয়েছে, অবিশ্বাস এই পারফরম্যান্স দেখেই মেসিকে আগামী বছরের বিজয়ী ভাবছেন রোনালদো। তাই আগে থেকেই জানিয়ে রাখলেন শুভ কামনা।

গত মৌসুমে অবিশ্বাস্য পারফর্ম করে ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদকে লিগ ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিতিয়েছেন রোনালাদো। উড়ন্ত সেই পারফরম্যান্সের সুবাদেই রিয়ালের পর্তুগিজ তারকা এরই মধ্যে জিতে নিয়েছেন ইউরোপের বর্ষসেরা ও ফিফা বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার।

ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর দেওয়া ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়েও ৩২ বছর বয়সী পর্তুগিজ উইঙ্গারকেই ফেভারিট মনে করা হচ্ছে। তার সঙ্গে মেসি-নেইমারও ব্যালন ডি’অর জয়ের দৌড়ে আছেন বটে। তবে শেষ পর্যন্ত রোনালদোর হাতেই পঞ্চম বারের মতো পুরস্কারটা উঠবে বলেই মনে করছেন ফুটবলবোদ্ধারা।

কিন্তু একদিন আগে সবার সেই ধারণাকে মিথ্য প্রমাণ করে ছড়িয়ে পড়ে ‘মেসিই এবারের ব্যালন ডি’অর জিততে যাচ্ছেন’ গুঞ্জব। কিন্তু সেই গুঞ্জবকে উড়িয়ে দিয়ে ডন ব্যালন ছড়ালো আরেক গুঞ্জব!

তাদের এই দাবি কতটা সত্য, সেটা প্রমাণিত হবে আগামী মাসেই। ডিসেম্বরেই রোনালদো, মেসি ও নেইমারের মধ্য থেকে যেকোনো একজনের হাতে উঠবে ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর দেওয়া ব্যালন ডি’অর।