বড় জয়েই খাতা খুলল রাজশাহী

ক্রিকেট খেলাধুলা
ব্যাটিংয়ে নিজেকে মেলে ধরলেন মুমিনুল। ছবি শামসুল হক।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ১৩৫ রান বড্ড মামুলি। দেখেশুনে ব্যাট করার মূলমন্ত্র নিয়ে মাঠে নেমে রাজশাহীর দুই ওপেনার বেশ স্বচ্ছন্দেই খেললেন। মমিনুল হক আর লেন্ডল সিমন্সের জোড়া ফিফটিতে ২০ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটে জিতেছে রাজশাহী কিংস। সিলেট-পর্বে দুই ম্যাচ খেলে জয়হীন রাজশাহী জয়ের খাতাটা খুলল বীর বিক্রমেই।

রাজশাহীর দুই ওপেনার লেন্ডল সিমন্স আর মুমিনুল হকই খেলাটা প্রায়ং শেষ করে দিয়ে এসেছেন। ওপেনিংয়েই রান উঠেছে ১২২। হাথুরুর জমানায় টি-টোয়েন্টিতে ‘অচল’ট্যাগ লাগিয়ে দেওয়া মুমিনুল আজ খেলেছেন দুর্দান্ত এক ইনিংস। এবারের বিপিএলে প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিফটি করেছেন তিনি। ৪৪ বলে ৬৩ রানের অপরাজিত এই ইনিংসটিতে ছিল আগ্রাসন আর নিজেকে মেলে ধরার অদম্য বাসনা। তাঁর এই ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ৩টি ছয়।
মুমিনুলের সঙ্গে ফিফটি পেয়েছেন সিমন্সও। ৫০ বলে ৫৩ রান তাঁর। মাশরাফির বলে নাজমুল অপু তাঁর ক্যাচ ফেলে দিয়েছিলেন ইনিংসের শুরুতেই। কুড়িয়ে পাওয়া সুযোগটার পূর্ণ সদ্ব্যবহারই করেছেন এই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান।
সব কটি উইকেট হাতে নিয়ে জয়ের পথেই এগিয়ে যাচ্ছিল রাজশাহী। কিন্তু থিসারা পেরেরা তা হতে দেননি। সিমন্সকে রান আউট করার পাশাপাশি জিম্বাবুইয়ান ম্যালকম ওয়ালারকে বোল্ড করেন তিনি। তবে রাজশাহীকে বাকি পথটুকু দারুণভাবে পার করে দেন রনি তালুকদার। ৪ বলে ১০ করে অপরাজিত ছিলেন তিনি।
এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে খুব ভালো করতে পারেনি রংপুর। দ্রুত একাধিক উইকেট হারিয়ে ফেলা রংপুরকে সম্মানজনক সংগ্রহ এনে দেন রবি বোপারা—৫১ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। রংপুরের সংগ্রহ শেষ পর্যন্ত দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১৩৪।
এই জয়ে পয়েন্ট তালিকার চার নম্বরে উঠে এসেছে রাজশাহী কিংস। সমান ২ পয়েন্ট পেলেও রানরেটে পিছিয়ে থেকে ছয় নম্বরে রংপুর রাইডার্স।