মাশরাফির জায়গা দখল করবে যে ক্রিকেটার

খেলাধুলা
কাজী অনিক, বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের নির্ভরযোগ্য সেনানী।  গতির ঝড় তুলে সম্প্রতি কেড়ে নিয়েছেন আলো।  তরুণ এই ফাস্ট বোলারকে ঘিরে নতুন প্রত্যাশার বীজ বুনছেন এই দেশের ক্রিকেট ভক্তরা।  ক্রিকেট অঙ্গনের সবার প্রত্যাশা, অনিকের উত্থানের মধ্য দিয়ে ভবিষ্যতে বাংলাদেশ পাবে মাশরাফি বিন মুর্তজার মতো নতুন কাউকে।

যে অনিককে ভাবা হচ্ছে মাশরাফির উত্তরসূরি, সেই অনিক নিজে যারপরনাই মুগ্ধ মাশরাফিতে।  মাশরাফির পারফরমেন্স, ক্যারিয়ার- সবকিছুই প্রেরণা যোগায় কাজী

অনিককে। সম্প্রতি দৈনিক মানবজমিনকে কাজী অনিক বলেন, ‘আসলে মাশরাফি ভাইয়ের সঙ্গে আমার তেমন পরিচয় নেই।  মাঠে একটু দেখা হয়।  তাকে দেখে আসলে আমি অনেক অনুপ্রেরণা পাই। ’

অনিক বলেন, ‘একটা মানুষ এ বয়সে এতটা ভালো বল করতে পারেন কীভাবে? আমি শুনেছি মাশরাফি ভাইয়ের গল্প।  যে, কীভাবে তিনি ইনজুরি নিয়ে বল করছেন।  আরেকটা বিষয় আমি শুনেছি যে, তিনি নাকি চোখ বন্ধ করেও এক জায়গাতে বল করতে পারেন।  আমিও সেটাই চেষ্টা করছি। ’অবশ্য বোলিংয়ের ক্ষেত্রে অনিক বেশি অনুসরণ করেন কাটার মাস্টার খ্যাত বিশ্ব কাঁপানো পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকেই।  অনিকের ভাষ্য, ‘আমি মুস্তাফিজ ভাইকে ফলো করি।  তার মতো বল করতে চাই।  তার অ্যাকশন, তার বোলিংয়ের সব কিছুই আমার ভালো লাগে। ’

পেস বোলারদের ক্যারিয়ারে ভয়ঙ্কর একটি ব্যাপার ইনজুরি।  শরীরের উপর ধকল যায় বলে প্রায়ই পেসাররা ইনজুরির শিকার হন।  তবে এখনও তেমনটি ঘটেনি অনিকের ক্ষেত্রে, ‘আল্লাহ্‌র রহমতে বল করতে গিয়ে এখন পর্যন্ত আমি কোন ইনজুরিতে পড়িনি।  আসলে আমি কোনো চিকিৎসকের কাছে বা ফিজিওর কাছে যেতেই ভয় পাই।  তাই ট্রেইনার যারা আছেন তাদের কাছে নিজেকে ফিট রাখার কাজগুলো করি। ’অনিক বলেন, ‘নিজেই ফিটনেস ঠিক রাখতে সব কাজ সঠিকভাবে করি।  তবে একবার বাইক চালাতে গিয়ে আহত হয়েছিলাম।  তখন দুইমাসের মতো খেলার বাইরে ছিলাম।  এখন ভালো আছি। ’