মোঘলদের প্রশংসা করলে বরদাস্ত করা অনুচিত: বিজেপি

বিনোদন

যেসব পরিচালক বর্বর মোঘল শাসকদের মহিমান্বিত করছে, তাদের ক্ষমা করা উচিত নয়। সম্প্রতি এমন মন্তব্য করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। সঞ্জয় লীলা বানশালীর পদ্মাবতী ছবিতে অন্যতম মুখ্য চরিত্র আলাউদ্দিন খিলজি। এই নিয়েই মন্তব্য করতে গিয়ে বিজেপি এ কথা বলেছে।

বিজেপির মুখপাত্র জিভিএল নরসিং জানিয়েছেন, যখন কোনও ছবি আলাউদ্দিন খিলজির মতো একজনকে হিরো বানিয়ে তৈরি হয়, তখন কিছু ক্ষেত্রে সেটি হতাশাজনক হয়। কারণ তিনি এখনও পর্যন্ত দিল্লির সবচেয়ে অমার্জিত সুলতান। যদি কোনও ছবি এমন কোনও চরিত্রে মানুষের জীবনকে ইতিবাচক দিক থেকে দেখায়, তাহলে এটা অবশ্যই মানুষের আবেগে প্রভাব ফেলবে। যেসব ছবির নির্মাতারা বর্বর শাসকদের ইতিবাচক দিক তুলে ধরে, তাদের বরদাস্ত করা উচিত নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, ৪০০ বছরের মোঘল শাসন দেখেছে ভারত। মানব সভ্যতার ইতিহাসে সেই শাসনের সঙ্গে শুধু বর্বরতার তুলনা চলে। আন্তর্জাতিক স্তরের ঐতিহাসিকদের কাছেও তার প্রমাণ আছে। কিন্তু ঐতিহাসিকদের কাছে ভারত আসলে বিকৃত দেশ তৈরি হচ্ছে। মন্দির বা মন্দিরের ধ্বংসাবশেষের প্রমাণ রেকর্ড করা হয়েছে।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট পদ্মাবতীর মুক্তি নিয়ে কোনও আবেদন শুনতে অস্বীকার করেছে। বলেছে, সিনেমা নিয়ে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ফিল্ম সার্টিফিকেশনের পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে। আদালত তাদের অধীকারে হস্তক্ষেপ করবে না।

কিছু দিন আগে ভারতীয় জনতা পার্টির বিধায়ক দিয়া কুমারী জয়পুর রাজপরিবারের সদস্য হুমকি দিয়েছেন, পদ্মাবতী ছবির মুক্তি তিনি আটকে দেবেন। তবে পরিচালক যদি ‘আপত্তিকর দৃশ্যগুলি’ ছবি থেকে সরিয়ে নেয়, তাহলে ছবি মুক্তিতে তার কোনও আপত্তি নেই। রাজপুত সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে তিনি জানিয়েছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত না দৃশ্যগুলো ছবি থেকে সরানো হবে, পদ্মাবতী থিয়েটারে মুক্তি পাবে না। তবে শুধু দৃশ্যগুলো সরালেই হবে না। দিয়া কুমারী জানিয়েছেন, আপত্তিকর দৃশ্যগুলো সরানোর পর তারা যদি সন্তুষ্ট হন, তবেই মুক্তি পাবে পদ্মাবতী।

ভারতের কলকাতা২৪ পত্রিকার খবরে বলা হয়, শুটিং শুরু হওয়ার আগে কর্ণী সেনা বিরুদ্ধাচরণ করছিল। তাদেরও অভিযোগ ছিল ইতিহাস বিকৃত করেছেন পদ্মাবতীর পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানশালী। সেই কারণে তারা শুটিং সেটে ভাঙচুরও চালায়। ক্যামেরাসহ অন্য যন্ত্রপাতি ভেঙে দেয়। এ ছাড়া ছবি মুক্তি সাময়িক পিছোতে চেয়েছে বিজেপি। এই মর্মে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে তারা নির্বাচন কমিশন ও সেন্সর বোর্ডকে চিঠিও দিতে চলেছে।