যে কারণে ক্ষুদ্ধ প্রীতি, বিব্রত ফিঞ্চ!

ক্রিকেট খেলাধুলা

ব্যাটিং-বোলিং শেখানোর জন্য দলে কোচের কমতি নেই।দলও বেশ ছন্দে রয়েছে।একাদশ আইপিএলে শিরোপার অন্যতম দাবীদার প্রীতি জিনতার পাঞ্জাব। সবকিছু ঠিক কিন্তু দলের বিদেশি ক্রিকেটারদের ভাংড়া নাচ শেখাবেন কে? দায়িত্বটা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বাঁ হাতি পেসার বারিন্দার স্রান। ক্রিস গেলদের ভাংড়ার ‘কোচ’ স্রান বলেছেন, ‘পাঞ্জাবি গান সবার ভাল লাগে। তাই সুযোগ পেলেই ভাংড়া নাচ শুরু করে দিই আমরা। আমি তো ওদের ভাংড়া নাচটা একটু শিখিয়েও দিয়েছি। গেইল তো এমনিতেই সব সময় নাচে।’ টিমে সম্প্রীতি বাড়াতে পাঞ্জাবের অস্ত্র তাই এখন ভাংড়া নাচ।

ক্ষুদ্ধ প্রীতি
কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের ম্যাচ থাকলেই ভি আই পি গ্যালারিতে তাঁর হাসিখুশি মুখটা সব সময় দেখা যায়। কিন্তু ১৫ এপ্রিল, চেন্নাই সুপার কিংসের সঙ্গে ম্যাচে মোহালিতে দেখা গেল, উত্তেজিত প্রীতি জিনতা বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন দর্শকের একাংশের সঙ্গে। প্রীতি-ঘনিষ্ঠরা পরে জানিয়েছেন, এতটা উত্তেজিত হতে পাঞ্জাব মালকিনকে তাঁরা আগে দেখেননি। হঠাৎ কী হল? প্রীতি পরে টুইট করেন, ‘ভিড়ের চাপে দু’টো বাচ্চা মেয়ের দম বন্ধ হয়ে আসছিল। ওরা কান্নাকাটি করছিল। আমি লোকজনকে বলি, ওদের কিছুটা জায়গা করে দিতে।’

বিব্রত ফিঞ্চ
আইপিএলে একটা রেকর্ড করে ফেললেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের অ্যারন ফিঞ্চ। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার এ বার নিয়ে মোট সাতটি ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে খেললেন। রাজস্থান, দিল্লি, পুণে, হায়দরাবাদ, মুম্বই, গুজরাত এবং পাঞ্জাব। ফিঞ্চ বলেছেন, ‘সাতটা দলের হয়ে খেলে ফেললাম ভাবলে একটু বিব্রত বোধ করছি।’

সুত্রঃ- গোনিউজ২৪