রিয়ালকে জিততে দিল না অ্যাটলেটিকো

খেলাধুলা ফুটবল

মাদ্রিদ ডার্বি! কাতালুনিয়ার স্বাধীনতা প্রশ্নে গোটা স্পেন যখন বিভক্ত তখন স্প্যানিশ ফুটবলের অন্যতম বড় মর্যাদার লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল অ্যাটলেটিকো ও রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু খেলা শেষ হতাশই হতে হয়েছে দু দলের। নতুন মাঠ ওয়ান্ডা মেট্রোপলিতানোয় দুই মাদ্রিদের কেউই জিততে পারেনি। গোলশূন্য ড্র হয়েছে সময়ের অন্যতম সেরা দুই কোচের দ্বৈরথ।

জিনেদিন জিদানের দলের ইনজুরি সমস্যার সমাধান হয়নি। অনুশীলনে এসে আবারও ইনজুরিতে পড়েছেন গ্যারেথ বেল। মাতেও কোভাচিচও খেলার বাইরে। অন্যদিকে ডিয়েগো সিমিওনের পুরো স্কোয়াডই সুস্থ। অ্যাঙ্গেল কোরেয়া আর আতোঁয়া গ্রিজম্যানই ছিলেন আক্রমণ ভাগে। এই ম্যাচ দিয়ে মূল একাদশে ফিরেছেন কোকে। রিয়ালের হয়ে আবার শুরুর একাদশে ফিরেছেন ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা মড্রিচ ও ফরাসি সেন্টার ব্যাক রাফায়েল ভারানে।

প্রথমার্ধের খেলায় দুই দলেরই ধার ছিল। রিয়ালের ধার ছিল জুটি বেঁধে খেলায়। বাম প্রান্তে মার্সেলো, বেনজেমার ওয়ান-টু গুলো ছিল দেখার মত। ৩৬ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে উঠে এসে ক্রুজ ও রোনালদোর ছন্দোবদ্ধ আক্রমণে উঠে এসেছিলেন অ্যাটলেটির ডি বক্সে। কিন্তু জার্মান মিডফিল্ডারের নেওয়া শট বাম পাশের পোস্ট ছুঁয়ে দিতে দিতে বেরিয়ে যায়।

অবশ্য ম্যাচের ৩ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো অ্যাটলেটিকো। মিডফিল্ডে বল দখলের লড়াই থেকে গাবির করা হেড রিয়াল ডিফেন্ডারের শরীরে লেগে কোরেয়ার পায়ের সামনে এসে পড়ে। কিন্তু গোলরক্ষক কাস্তিয়াকে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি এই ফরোয়ার্ড। আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমজমাট ফুটবল দেখা গেলেও ফিনিশিংয়ে দুই দলের দুর্বলতা ছিল চোখে পড়ার মতো। গোলশূন্য অবস্থায়ই প্রথমার্ধ শেষ হয়।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ইনজুরিতে ভোগা নিয়মিত অধিনায়ক সার্জিও রামোসকে তুলে নেন জিদান। তাঁর জায়গায় নামেন নাচো। বেনজেমার বদলে মাঠে আসেন মার্কো আসেনসিও। কিন্তু রিয়ালের আক্রমণের বিরুদ্ধে অতি রক্ষণের কৌশলে ফিরে যায় স্বাগতিকরা। তবে গ্রিজম্যানের পরিবর্তের ফার্নান্দো তোরেস ও কোরেয়ার বদলে কেভিন গ্যামিরো মাঠে নামলে কিছুটা প্রাণ ফিরে আসে খেলায়। ৭৮ মিনিটে তো প্রায় গোলই পাইয়ে দিয়েছিলেন গ্যামিরো। কিন্তু গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে তাঁর করা চিপ লাইন পার হওয়ার আগেই সরাতে সক্ষম হয়েছেন ভারানে। ৮৯ মিনিটে রোনালদোর জোরালো শটের সামনে ছুটে এসে পা বসিয়ে দিয়েছেন হার্নান্দেজ। বাকি পুরো সময়টা জুড়ে দুই দলের মিডফিল্ড আগ্রাসন আর আক্রমণভাগের ব্যর্থতার নজির দেখতে হয়েছে দর্শকদের।

এই ড্রয়ে চির প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার বিপক্ষে ১০ পয়েন্টে পিছিয়ে পড়লো জিদানের শিষ্যরা। বার্সেলোনা পা না হড়কালে রিয়াল কোনোভাবেই আর লা লিগার শিরোপা দৌড়ে ফিরবে না একথা এখন বলাই যায়।