রোহিঙ্গা ফেরতে যা যা করার মিয়ানমারকেই করতে হবে: যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক প্রধান খবর বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারে রাজনৈতিক সমঝোতা দরকার বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের জনসংখ্যা, শরণার্থী ও অভিবাসন বিষয়ক ব্যুরোর ভারপ্রাপ্ত অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি সাইমন হেনশ। তিনি বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারে রাজনৈতিক সমঝোতা দরকার। তাদেরই দায়িত্ব নিতে হবে রোহিঙ্গাদের ফেরানোর। এই ক্ষেত্র তৈরি করতে যা যা করা দরকার, তা তাদেরই করতে হবে।

শনিবার দুপুরে ঢাকার একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন এই কর্মকর্তা এসব কথা বলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে গত বৃহস্পতি ও শুক্রবার কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শন শেষে ঢাকায় এই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

সাইমন হেরশ বলেন, বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফেরত নেওয়ার দায়িত্ব মিয়ানমারকে নিতে হবে। সেজন্য প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া সহজ করতে ক্ষেত্র তৈরি করা লাগবে তাদের।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের রাখাইনে যে নৃশংসতার খবর মিলেছে, তার তদন্ত করতে হবে এবং যারা এ নৃশংসতায় জড়িত তাদের জবাবদিহির আওতায় আনতে হবে।

সাইমন হেনশ ছাড়াও প্রতিনিধি দলে আছেন, গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও শ্রম বিষয়ক ব্যুরোর ডেপুটি অ্যাসিসট্যান্ট সেক্রেটারি স্কট বাসবি, দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক ব্যুরোর ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি অ্যাসিসট্যান্ট সেক্রেটারি টম ভাজদা এবং পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল বিষয়ক ব্যুরোর অফিস ডাইরেক্টর প্যাট্রিসিয়া মাহোনি।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট থেকে মিয়ানমারের রাখাইনে সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধ মিলিশিয়াদের গণহত্যার মুখে এখন পর্যন্ত প্রায় সোয়া ছয় লাখ রোহিঙ্গা নতুন করে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।