লক্ষ্য ১৯৬ জয়ের জন্য মাঠে নামবে বাংলাদেশ,দেখুন পূর্ণাঙ্গ স্কোরবোর্ড…

ক্রিকেট খেলাধুলা প্রধান খবর

 

যদিও ইনিংসের শুরুতে ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। কিন্তু পরে সে ধারাবাহিকতা টিকে থাকেনি। দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে হাশিম আমলাকে বোল্ড করেন মিরাজ। চার বল খেলে তিন রান করেন আমলা।

এরপর কুইন্টন ডি কক ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের দাপুটে ব্যাটিংয়ে উড়তে থাকে দক্ষিণ আফ্রিকা। দশম ওভারে দলের রান যখন ৯৭ তখন মেহেদী হাসান মিরাজের বলে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে ধরা পড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ২৭ বল খেলে ৪৯ রান করেন তিনি।

দলীয় ১২২ রানে সাকিব আল হাসানের বলে ইমরুল কায়েসের হাতে ক্যাচ হন জেপি ডুমিনি। ১০ বল খেলে ১৩ রান করেন তিনি। ইনিংসের ১৫তম ওভারে রুবেল হোসেনের বলে এলবিডব্লিউ হন কুইন্টন ডি কক। ৪৪ বল খেলে ৫৯ রান করেন। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ডি ককের দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি এটি।

এই ম্যাচে বাংলাদেশ দলের অধিনায়কত্ব করছেন সাকিব আল হাসান। আর দক্ষিণ আফ্রিকার দলের অধিনায়কের দায়িত্বে রয়েছেন জেপি ডুমিনি।

এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট ও তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় বাংলাদেশ দল। টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় তথা শেষ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৯ অক্টোবর।

 

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণ আফ্রিকা: ১৯৫/৪ (২০ ওভার)

(কুইন্টন ডি কক ৫৯, হাশিম আমলা ৩, এবি ডি ভিলিয়ার্স ৪৯, জেপি ডুমিনি ১৩, ডেভিড মিলার ২৫*, ফারহান বিহারডাইন ৩৬*; সাকিব আল হাসান ১/২৮, মেহেদী হাসান মিরাজ ২/৩১, রুবেল হোসেন ১/৩৪, তাসকিন আহমেদ ০/২১, শফিউল ইসলাম ০/৩৩, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ০/২০, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০/২৩)।

প্রোটিয়াদের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৯ রান করেছেন কুইন্টন ডি কক। ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাট থেকে আসে ৪৯ রান। দ্বিতীয় উইকেটে ৭৯ রানের জুটি গড়েন ডি কক ও ডি ভিলিয়ার্স। শেষ দিকে পঞ্চম উইকেটে ৬২ রান করেন ফারহান বেহারদিয়েন ও ডেভিড মিলার। বেহারদিয়েন ৩৬ ও মিলার ২৫ রানে অপরাজিত থাকেন। বাংলাদেশের সেরা বোলার মেহেদী হাসান মিরাজ। ৪ ওভারে ৩১ রানে ২ উইকেট নেন ডানহাতি এ স্পিনার। এছাড়া সাকিব ২৮ রানে ১টি ও রুবেল ৩৪ রানে ১ উইকেট নেন। শফিউল ২ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূণ্য।