সংগীতশিল্পী সেলেনা গোমেজের জীবন হুমকির সম্মুখীন

সংগীতশিল্পী সেলেনা গোমেজ একের পর এক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন। শারীরিক ও মানসিক-দুদিক থেকেই এ তারকা অনেক রোগে ভুগছেন। প্রেম নিয়েও তো কম হলো না। গায়ক জাস্টিন বিবারের সঙ্গে এই সম্পর্ক জোড়া লাগে, আবার ভাঙে। কিন্তু কোনো কিছুতেই যে স্থিতিশীল হচ্ছে না সেলেনার জীবন। আবারও এই শিল্পী কোনো এক সংকটে ভুগতে শুরু করেছেন। সেই সংকটটি কী, তা এখনো প্রকাশ করেননি তিনি। তবে সেলেনার জীবনযাপনে হঠাৎ এসেছে আমূল পরিবর্তন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার ও জনসমক্ষে আসা আবারও কমিয়ে দিয়েছেন এ শিল্পী। ইনস্টাগ্রামে যেসব কাছের মানুষকে অনুসরণ করতেন সেলেনা, তাঁদের সবাইকে সেখান থেকে ছেঁটে ফেলেছেন তিনি।

সেলেনা গোমেজ ইনস্টাগ্রামে অনেক তারকাকেই অনুসরণ করতেন। কিন্তু গত কয়েক দিনে সেই তালিকা ছোট হয়ে এসেছে। সেলেনা এখন মাত্র ৩৬টি পাতা অনুসরণ করেন ইনস্টাগ্রামে। এই ৩৬ পাতার মধ্যে ১২টি হচ্ছে বড় বড় ব্র্যান্ডের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট। তা ছাড়া নিজের ভক্তদের বানানো কিছু ফ্যান পেজও আছে সেলেনার ওই তালিকায়। বন্ধু বলতে ইনস্টাগ্রামে মাত্র ১২ জন ব্যক্তিই এখন অবশিষ্ট আছেন, যাঁদের সেলেনা অনুসরণ করছেন। সেই তালিকায় আছেন টেলর সুইফট, জেসিকা অ্যালবার মতো তারকারা। তবে লক্ষণীয় বিষয় হলো, তালিকাটিতে নেই প্রেমিক জাস্টিন বিবার কিংবা সেলেনার মা ম্যান্ডি টিফের নাম।

কাছের বন্ধু ফ্রান্সিয়া রাইসাকেও ইনস্টাগ্রামে ‘ফলোয়িং’ তালিকায় রেখেছেন সেলেনা গোমেজ। সংগীতশিল্পীর এই অস্থিতিশীল মানসিক অবস্থা নিয়ে রাইসা সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, কিডনি প্রতিস্থাপনের পর থেকে মানসিক আতঙ্কে ভোগেন সেলেনা গোমেজ। ছোট ছোট বিষয়েও আগের চেয়ে অনেক বেশি প্যানিক হয়ে যান তিনি। তা ছাড়া অবসাদ (ডিপ্রেশন) তো আগে থেকেই ছিল। লুপাস রোগের কারণে এই অবসাদ তাঁকে পেয়ে বসেছে। তা ছাড়া সেলেনার আরেক কাছের বন্ধু বিভিন্ন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, জাস্টিন বিবারের সঙ্গে আবারও নাকি বিচ্ছেদ হয়েছে সেলেনা গোমেজের। তাই এখন সবকিছু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে একা সময় কাটাতে চাইছেন সেলেনা। এ জন্যই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে বিরতি নিচ্ছেন এই গায়িকা। কিছুদিন সব আলোচনা থেকে দূরে থাকতে চান তিনি।

Comments

comments

Leave A Reply

Your email address will not be published.