সাকিবদের আজকের ম্যাচে ৫-০ নাকি ৪-১ হবে?

ক্রিকেট খেলাধুলা

এখন পর্যন্ত এবারের আইপিএলে সব দিক থেকেই এগিয়ে আছে সাকিব আল হাসানদের দল সানরাইজর্স হায়দ্রাবাদ। তিনটি ম্যাচের মধ্যে সবকয়টিতেই জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা।

তাদের আক্রমণের ধরণ থেকে শুরু করে সবকিছুতেই রয়েছে দারুণ ধারাবাহিকতার ছোঁয়া। এমনকি তিন ম্যাচের সবকয়টিতেই প্রতিপক্ষকে দেড়শ রানের নিচে আটকে রাখতে সক্ষম হয়েছিলো সাকিবরা।

শুধু তাই নয়, বোলিংয়ের পাশাপাশি রান তাড়া করার ক্ষেত্রে দারুণ পারফর্ম করেছেন দলের ব্যাটসম্যানেরাও। বিশেষ করে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ইডেন গার্ডেন্সের মাঠে জয় পাওয়ায় আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে এখন হায়দ্রাবাদ দলটি।

আত্মবিশ্বাসের চুড়ায় থেকেই আজ বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায় পাঞ্জাবের মোহালিতে আইএস বিন্দ্রা স্টেডিয়ামে মাঠে নামবে সাকিবদের সানরাইজার্স। যেখানে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে আজ তাদের প্রতিপক্ষ রবিচন্দ্র অশ্বিনের কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

এই ম্যাচে মাঠে নামার আগে অবশ্য খুব একটা চিন্তায় পড়তে হচ্ছে না হায়দ্রাবাদকে। কেননা মোহালির এই মাঠে তাদের রেকর্ড খুব একটা খারাপ নয়। মোটের ওপর এই ভেন্যুতে মোট চার বার পাঞ্জাবের মুখোমুখি হয়ে চারটিতেই জয়ের দেখা পেয়েছিলো হায়দ্রাবাদ। 

এমনকি সর্বমোট জয়ের সংখ্যাতেও পিছিয়ে আছে পাঞ্জাব। মোহালির এই মাঠে ৪৮টি ম্যাচের মধ্যে ২৪টিতে জয়ের মুখ দেখতে সক্ষম হয়েছে দলটি। সুতরাং বলা যায় আজ সাকিবদের বিপক্ষে কিছুটা ব্যাকফুটে থেকেই মাঠে নামতে হবে তাদের।

তবে একটি দিক থেকে আত্মবিশ্বাস পেতে পারে অশ্বিন বাহিনী। এবারের আসরে পাঞ্জাবে অনুষ্ঠিত দুটি ম্যাচেই জয় পেয়েছিলো তারা। সেক্ষেত্রে হয়তো আজও সেই আত্মবিশ্বাস কাজে লাগানোর প্রত্যয় নিয়ে খেলতে নামবে দলটি। এখন দেখার বিষয় শেষ পর্যন্ত কে হাসে জয়ের হাসি।

এদিকে এই ম্যাচে মাঠে নামার আগে দারুণ একটি রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। পাঞ্জাবের বিপক্ষে আর মাত্র একটি উইকেট শিকার করতে পারলেই টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৩০০ উইকেট শিকারি হিসেবে নাম লেখাবেন তিনি।

এর আগে যেই রেকর্ডে নাম লিখিয়েছিলেন শুধু মাত্র চার জন ক্রিকেটার। তারা হলেন পাকিস্তানের শহীদ আফ্রিদি (৩০০), ক্যারিবিয়ান সুনীল নারিন (৩২৪), লঙ্কান লাসিথ মালিঙ্গা (৩৪৮) এবং আরেক ক্যারিবিয়ান ডোয়াইন ব্রাভো (৪১৪)।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ স্কোয়াড
কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), তন্ময় আগারওয়াল, খলিল আহমেদ, বাসিল থাম্পি, রিকি ভুই, বিপুল শর্মা, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, শিখর ধাওয়ান, শ্রীভাস্ত গোস্বামী (উইকেটরক্ষক), অ্যালেক্স হেলস, মেহেদী হাসান, দীপক হুদা, ক্রিস জর্ডান, সিদ্ধার্থ কাউল, ভুবনেশ্বর কুমার, মোহাম্মদ নবী, থাঙ্গারাসু নাটারাজান, মনিষ পান্ডে, ইউসুফ পাঠান, রশিদ খান, শচীন বেবি, ঋদ্ধিমান সাহা (উইকেটরক্ষক), সন্দ্বীপ শর্মা, সাকিব আল হাসান, বিলি স্ট্যানলেক।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব স্কোয়াড-
রবিচন্দ্র অশ্বিন (অধিনায়ক), আকাশদ্বিপ নাথ, মায়াংক আগারওয়াল, বেন ডরশুইস, মায়াংক দাগর, অ্যারন ফিঞ্চ, ক্রিস গেইল, মানজুর দার, ডেভিড মিলার, মুজিব উর রহমান, করুন নায়ার, অক্ষর প্যাটেল, লোকেশ রাহুল (উইকেটরক্ষক), অঙ্কিত রাজপুত, প্রদীপ সাহু, মোহিত শর্মা, বারিন্দ্রার স্রান, মার্কাস স্টইনিস, মনোজ তিওয়ারি, আন্দ্রে টাই, যুবরাজ সিং।