সালমানের সাজার কথা শুনে বলিউডের কে কী বললেন? দেখুন!!

বলিউড বিনোদন

সালমান খানের ৫ বছরের জেল, ১০ হাজার টাকা জরিমানার সাজা নিয়ে কী বলছেন বলিউড, রাজনীতির দুনিয়ার রথী-মহারথীরা? ১৯৯৮ সালের কৃষ্ণসার হরিণ শিকার মামলায় সেফ আলি খান সহ বাকিরা বেকসুর খালাস পেলেও দোষী ঘোষিত হয়েছেন বলিউডের ভাইজান।টাবু, নীলম, সোনালি বেন্দ্রেরা নির্দোষ ঘোষিত হলেও আগামীকাল দায়রা আদালতে জামিনের আবেদনের ফয়সালা হওয়া পর্যন্ত তাঁকে কাটাতে হবে যোধপুর সেন্ট্রাল জেলেই।

এতে খুবই কষ্ট পাচ্ছেন জয়া বচ্চন। সালমানের প্রাক্তন প্রেমিকা ঐশ্বরিয়া রাইয়ের শাশুড়ি বলছেন, খারাপ লাগছে। সলমনকে রেহাই দেওয়া উচিত ছিল। মানুষের মঙ্গলে অনেক কাজ করেছে।

তবে সালমানের জন্য সহানুভূতি দেখিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হচ্ছেন জয়া। একজন লিখেছেন, কাল উনি জয়ার পরিবারের কাউকে মারলেও কি সহানুভূতি দেখাতে হবে। বোধহীন কথাবার্তার জন্য এমন রাজনীতিককে ধিক!

তবে জয়া একা নন, সালমানের প্রতি এই মামলায় রায় ঘোষণার আগেই সমর্থনের সুরে কথা বলেছেন রানি মুখোপাধ্যায়ের মতো কেউ কেউ। হিচকি অভিনেত্রী, সালমানের রেস থ্রি-র ডিরেক্টর রেমো ডিসুজা, বিগ বস ১১-র বিজয়ী শিল্পা শিন্ডে ।

বলিউডের বিখ্যাত পরিচালক সুভাষ ঘাই ট্যুইট করে বলেছেন, ‘আমি হতবাক। ভারতের বিচারব্যবস্থার উপর পূর্ণ আস্থা আছে। চূড়ান্ত বিচারের আবেদন জানানোর জন্য অনেক দরজা খোলা আছে।

অভিনেতা অর্জুন রামপালও মনে করছেন, সালমানকে একটু বেশিই কড়া সাজা দেওয়া হয়েছে। তিনি ট্যুইটারে লিখেছেন, ‘আইন নিজের পথে চলবে। সে বিষয়ে কিছু বলার নেই। কিন্তু এখন আমার নিজেকে অসহায় মনে হচ্ছে।

সলমন ও তাঁর পরিবারের পাশে আছি। কারণ, সালমানকে অপরাধী সাব্যস্ত করা হলো। এটা অত্যধিক কড়া। আশা করি তিনি প্রাপ্য ন্যায়বিচার পাবেন।’রেমো বলেছেন, শ্যুটিং পর্বে মামলা নিয়ে কিছুই বলে না সলমন। আবু ধাবিতে শ্যুটিংয়ের সময়ও কিছু বলেনি। ওর ঈদের বড় রিলিজের সঙ্গে যুক্ত সবাই চায়, বহুদিন ধরে চলতে থাকা মামলার অবসান হোক।
রানি তো বলেই দিয়েছেন, আমার ভালবাসা সবসময় রয়েছে ওর প্রতি। সবসময় বলব।

শিল্পা শিন্ডে বলেছেন, এসব তো জীবনের তুচ্ছ বিষয়। আরও অনেক কিছু আছে জীবনে। এসব আজেবাজে ব্যাপার থেকে দূরে রাখা উচিত ওর মতো মহান মানুষকে। আশা করি, দুর্যোগ কেটে যাবে ওর জীবনে।

এই মামলায় সালমানের সহ অভিযু্ক্ত, আজকের রায়ে রেহাই পাওয়া অভিনেত্রী নীলমের স্বামী, অভিনেতা সমীর সোনি বলেছেন, নিজেদের কাছে রায়টা খুশির ব্যাপার। কিন্তু খারাপ লাগছে সলমনের জন্য, কষ্ট পাচ্ছি। ঠিকঠাক ন্যয়বিচার হল না মামলায়।