‘সিক্রেট সুপারস্টার’কে টপকে নিউ ইয়র্কে প্রদর্শিত হচ্ছে ‘ঢাকা অ্যাটাক’

বিনোদন

বাংলাদেশের সিনেমার জন্য এটা এক অবিস্মরণীয় ঘটনা। বিদেশ তথা আমেরিকার মতো দেশের সিনেমা হলে দাপট দেখিয়ে চলেছে বাংলাদেশের ‘ঢাকা অ্যাটাক’। এমনকি বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খানের সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘সিক্রেট সুপারস্টার’কে টপকে নিউ ইয়র্কের একটি সিনেমা হলে প্রদর্শিত হচ্ছে দীপংকর দীপন পরিচালিত দেশের প্রথম পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা।

বিশ্বের অন্যতম বড় মাল্টিপ্লেক্স চেইন ‘রিগ্যাল’-এর নিউ ইয়র্ক শাখা ‘কাফম্যান অ্যাস্টোরিয়া’তে ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর প্রথম শো ছিলো গত শুক্রবার (২০ অক্টোবর)। প্রথম শো হাউজফুল হওয়ার পর হল কর্তৃপক্ষ শনিবার (২১ অক্টোবর) আমির খানের বহুল আলোচিত ‘সিক্রেট সুপারস্টার’কে অন্য একটি ছোট হলে পাঠিয়ে দিয়ে সবচেয়ে বড় হলগুলোর একটিতে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ চালায়। আশ্চর্যজনক ব্যাপার হলো, এই শো’ও হাউজফুল হওয়ার সুবাদে হল কর্তৃপক্ষ আরও চমকপ্রদ সিদ্ধান্ত নেয়। সেটা হলো, রোববার (২২ অক্টোবর) একটি শো বাড়িয়ে ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর দুটি শো প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নেয়। একটি বিকাল ৩টায় ও আরেকটি রাত সাড়ে ৯টায়।

বিষয়টি জানিয়েছেন বিশ্ব পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো’র প্রেসিডেন্ট ওয়ালিউল্লাহ সজীব সপ্তক। তিনি জানান, বাংলাদেশের নিউ ইয়র্ক প্রবাসীরা ইতিহাস তৈরি করেছে। এখন যা বলব, তা এত তাড়াতাড়ি বলতে পারব ভাবতেও পারিনি কোনোদিন। কিন্তু ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর মত গেম চেঞ্জার সিনেমা যেকোনো কিছু ঘটাতে সক্ষম। তারই ফলশ্রুতিতে এমন অভাবনীয় ঘটনার অবতারণা। যে ‘রিগ্যাল’ ২ দিন আগেও কোনোরকমে ১টা শো দিয়ে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ শুরু করেছিল, তারা প্রথমদিনের হাউজফুল অবস্থার পর শনিবারে ‘সিক্রেট সুপারস্টার’কে সরিয়ে (একটা ছোট হলে পাঠিয়ে দিয়ে) তাদের সবচেয়ে বড় হলগুলির একটাতে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ চালায়। এবং সেটাও হাউজফুল, হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন সেটাও হাউজফুল হওয়ার পর আগামীকাল রবিবার ১ টা শো বাড়িয়ে দিয়ে ২ টা শো চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আই রিপিট, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মাল্টিপ্লেক্স চেইন, ‘রিগ্যাল’ তাদের সবচেয়ে ব্যস্ততম লোকেশনগুলোর একটি নিউইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত ‘কাফম্যান অ্যাস্টোরিয়া’তে আগামীকাল রবিবার একটি বাংলাদেশি সিনেমা ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর ১ টা শো বাড়িয়ে দিয়ে ২ টা শো চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে (একটা বিকাল ৩টায়, আরেকটা যথারীতি সাড়ে ৯টায়)। বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশি কোনো সিনেমার ক্ষেত্রে এমন অকল্পনীয় ঘটনা প্রথম ঘটল।

সজীব সপ্তক আরও জানান, এক ‘আয়নাবাজি’ একলাফে বাংলাদেশের সিনেমাকে কানাডায় প্রতিষ্ঠিত করে ফেলেছে। আর এখন এক ‘ঢাকা অ্যাটাক’ মাত্র ২ দিনেই আমেরিকায় আমাদেরকে দিচ্ছে পায়ের তলায় খুব শক্ত মাটি। আমরা এগিয়ে যাবোই। বাংলাদেশের সিনেমা বিশ্ববাজারে খুব তাড়াতাড়ি তার বিশাল জায়গা করে নেবেই।

উল্লেখ্য, ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিতে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ, মাহিয়া মাহি, এবিএমন সুমন, শতাব্দী ওয়াদুদ, কাজী নওশাবা, তাসকিন রহমান, সৈয়দ হাসান ইমাম, আফজাল হোসেন, আলমগীর প্রমুখ। পুলিশ পরিবার কল্যাণ সমিতি, থ্রি হুইলার্স ও স্প্ল্যাশ মাল্টিমিডিয়ার প্রযোজনায় নির্মিত ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছিলো গত ৬ অক্টোবর। টানা ৩ সপ্তাহ সাফল্যের সঙ্গে সিনেমা হলে প্রদর্শিত হচ্ছে এটি।

কানাডা ও আমেরিকার সিনেমা হলে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ মুক্তি পেয়েছে গত ২০ অক্টোবর। স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো’র আন্তর্জাতিক পরিবেশনায় ছবিটি মধ্যপ্রাচ্যের তিনটি দেশেও মুক্তি পাবে।