স্প্যানিশ লীগে আর দেখা যাবেনা মেসিদের!

খেলাধুলা ফুটবল

ফুটবল এবং পর্যটনের জন্য বিখ্যাত একটি শহর বার্সেলোনা। বিশ্বব্যাপী পরিচিত এই শহরটি কাতালুনিয়ার রাজধানী।

যে কাতালুনিয়া শুক্রবার স্পেনের থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছে। স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এই ঘোষণা নিয়ে নতুন বিবাদ আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। এই পরিস্থিতিতে এখন বার্সেলোনার বিখ্যাত ফুটবল ক্লাবটির ভবিষ্যত কী? মেসি-সুয়ারেসদেরই বা কী হবে?

চলতি স্প্যানিশ লিগে এখনও ২৯টি ম্যাচ বাকী আছে। এ মাসের শুরুতে বিতর্কিত গণভোটে কাতালুনিয়ার স্বাধীনতার পক্ষে রায় আসার পর শুক্রবার কাতালান পার্লামেন্টে স্পেন থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার প্রস্তাব পাশ হয়। এর জবাবে কিছুক্ষণ পরই মাদ্রিদে স্প্যানিশ পার্লামেন্টে কাতালুনিয়ার উপর কেন্দ্রের শাসন জারি করার প্রস্তাব পাশ হয়। পরিস্থিতি নিঃসন্দেহে সংঘাতের দিকেই যাচ্ছে।

তবে ক্লাবের ভবিষ্যত নিয়ে এখনই অনিশ্চয়তায় ভুগছেন না কোচ আর্নেস্তো ভালভেরদে। তার মনযোগ এখনও মাঠের খেলার দিকে। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমের সামনে বার্সা কোচ বলেছেন, ‘কোনো কিছুই পাল্টাবে না।

লা লিগা থেকে বার্সার বেরিয়ে আসার মত ঘটনা ঘটতে পারে না। বার্সা ছাড়া একটা লিগ হতেই পারে না। আমরা একটা অনুমান নিয়ে কথা বলছি। যেটা এখানে ঘটছে, আমি সেটাই অনুসরণ করি। আমি খেলার মনোযোগ দিতে চাই। ‘
কেবল বার্সেলোনা নয়; কাতালুনিয়ার আরও দুটি ক্লাব এস্পানিওল এবং জিরোনা চলতি লা লিগায় খেলছে। কাতালুনিয়া স্বাধীন হলে তবে কি আলাদা লিগ চালু হবে? এ বিষয়ে অবশ্য লা লিগার সভাপতি হাভিয়ের তেবাস জানিয়েছিলেন, কাতালুনিয়া স্পেন থেকে আলাদা হয়ে গেলে এই তিন দলের লা লিগায় খেলতে পারবে না।

তবে কাতালান ফুটবল ফেডারেশন সভাপতি আন্দ্রিউ সুবিয়েস বলেছেন, ‘আমরা অবশ্যই আরএফইএফের সঙ্গেই লিগ চালিয়ে যেতে চাই। এটা রাজনীতি নয়, ফুটবল। যেখানে অনেক ব্যক্তিমালিকানাধীন ক্লাবের স্বার্থ জড়িত, আমাদের তা রক্ষা করতে হবে। অন্তত এই মৌসুমের জন্য তো অবশ্যই। তারপর উপযুক্ত ব্যক্তিরা মিলে সমাধানের পথ খুঁজে বের করবেন এবং প্রয়োজন হলে নতুন আইন প্রণয়ন করবেন। ‘

উল্লেখ্য, শনিবার রাতে বার্সেলোনা খেলবে আথলেতিক বিলবাওয়ের মাঠে। এছাড়া আগামী রবিবার জিরোনার মাঠে খেলতে যাওয়ার কথা রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদের। কাতালুনিয়া স্বাধীনতা ঘোষণার পর এই ম্যাচগুলো নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। এবার হয়তো সময়ই বলে দেবে কী ঘটতে যাচ্ছে মেসিদের ভাগ্যে।