স্বভাবটা বদলালো না স্টিভ ওয়ার! বেন স্টোকস নেই কেন

ক্রিকেট খেলাধুলা

অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক থাকার সময় কথার লড়াইটাকে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছিলেন স্টিভ ওয়া। বিশ্বকাপ জিতিয়ে দলকে বিশ্বসেরা করেছেন। টানা টেস্ট জিতে অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছিল তার দল। মাঠের স্লেজিংয়েও স্টিভের অস্ট্রেলিয়ার ছিল না কোন তুলনা। ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীর সাথে তার কথার বা মাঠ ও মাঠের বাইরের মনস্তাত্বিক লড়াই ছিল যেন শিল্প। দারুণ টক্কর দিতেন কেবল সৌরভই তখন। বহুদিন আগেই খেলা ছেড়েছেন ওয়া ভাইদের বড়জন। কিন্তু অ্যাশেজের মত বড় দ্বৈরথের সময় বুঝি সামলে রাখতে পারেন না নিজেকে! মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে কথার লড়াইয়ের সেই পুরোনো স্বভাব।

কিছুদিন আগে অসি সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার কথার লড়াই শুরু করেছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের কটাক্ষ করে। এবার কামান দাগলেন খোদ স্টিভ। সরাসরি আক্রমণ করলেন ইংল্যান্ডের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান অ্যালিস্টার কুককে, ‘কুকের জন্য এটা কঠিন সিরিজ হবে। বিশেষত মিচেল স্টার্কের বিপক্ষে। সে এখনও অনেক ভাল খেলোয়াড়। কিন্তু আমার মনে হয় না কয়েক বছর আগে সে যেমন ছিল, এখনও তাই আছে । যদিও বলা হয় সে জানে কিভাবে রান করতে হয় এবং ওর দারুণ রেকর্ড আছে।’

গত গ্রীষ্মে নিজ দেশে উইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৭ টেস্টে ৪৪ গড়ে ৫৭২ রান করেছেন ইংল্যান্ড দলের সাবেক অধিনায়ক কুক। তবে ওয়ার মতে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অ্যাশেজ বিবেচনায় তা যথেষ্ট নয়, ‘গত ১২ মাসে কুক যেসব বোলিং আক্রমণের মুখোমুখি হয়েছে সেগুলো মোটেও অস্ট্রেলিয়ার মানের নয়, বিশেষত পেসের ক্ষেত্রে।’

বিতর্কিত ইংলিশ অল রাউন্ডার বেন স্টোকস নেই এবারের অ্যাশেজে। ওয়ার মতে নিজেদের সবচেয়ে ভাল দল নিয়েই খেলা উচিত ইংল্যান্ডের। স্টোকসকে ছাড়া খর্বশক্তির দলকে হারিয়ে যেন অস্ট্রেলিয়ারও ভাল লাগবে না। স্টিভের ভাষায়, ‘আপনি সবচেয়ে ভাল দলের বিপক্ষেই নিজেকে পরীক্ষা করতে চাইবেন। তা না করতে পারলে অর্জনটা ফাঁপা মনে হয়। মাঠে যারা আছে তাদের সাথেই আপনার খেলতে হবে, তবে তার (স্টোকস) না আসাটা একটা লজ্জার বিষয় হবে।’