হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়ায় রাস্তায় প্রসব, কিন্তু নবজাতকের মৃত্যু

অন্যান্য অপরাধ ও দুর্নীতি আলোচিত সংবাদ

মাদারীপুর সদর হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়ার পর রাস্তাতেই সন্তানের জন্ম দিলেন মা। তাৎক্ষণিক চিকিৎসা না পেয়ে মারা গেছে ওই নবজাতক। এ নিয়ে জেলাজুড়ে তৈরি হয়েছে ক্ষোভ। স্বজনদের অভিযোগ, বারবার অনুরোধ করার পরও গর্ভবতী মাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি। তবে আধুনিক যন্ত্রপাতির না থাকার অজুহাত দিয়ে দায় এড়ানোর চেষ্টা করেছে কর্তৃপক্ষ।

স্বজনরা জানায়, অসুস্থ অবস্থায় গত বুধবার সকালে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হন মহিষেরচর এলাকার মামুন খানের স্ত্রী আমেনা বেগম। শুক্রবার রাত ৩টার দিকে প্রসবব্যাথা উঠলে এখানে চিকিৎসা সম্ভব না উল্লেখ করে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে।

হাসপাতাল থেকে বের হবার সাথে সাথে সড়কেই নবজাতকের জন্ম হয়। পরে পুনরায় নবজাতক ও মাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একপর্যায়ে চিকিৎসকের পরামর্শে নবজাতকের জন্য প্রয়োজনীয় সব ওষুধ এনে দিলে তা প্রয়োগ করতে দেরি করে কর্তব্যরত নার্স সুমা হালদার, এমন অভিযোগ স্বজনদের। পরে শনিবার সকাল ৮টার দিকে নবজাতক মারা গেছে বলে স্বজনদের জানানো হয়।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের নার্স সুপারভাইজার সাহিদা সুলতানা দাবী করেন, একদিকে নবজাতকের ওজন কম হওয়া, অন্যদিকে প্রয়োজনীয় আধুনিক যন্ত্রপাতি না থাকার কারণেই নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে।

তবে, মাদারীপুর সিভিল সার্জনের এই প্রতিনিধি ডা. খলিলুর রহমান জানান, স্বজনদের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক দায়ীদের বিরুদ্ধে নেয়া হবে ব্যবস্থা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নার্স সদর হাসপাতালে না থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। আর, গত এক বছর ধরে সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পদও রয়েছে খালি পরে।