হায়দরাবাদের আত্মবিশ্বাসের বড় নাম টাইগার সাকিব

ক্রিকেট খেলাধুলা

ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) এবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদ দলের হয়ে খেলবেন সাকিব আল হাসান। আর সাকিবের অন্তর্ভুক্তিতে আত্মবিশ্বাস বেড়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। গতকাল সানরাইজার্সের বোলিং কোচ মুত্তিয়া মুরালিধরন বলেন, শিরোপা জিততে হলে দলে স্পিনারদের ভূমিকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সাকিব আল হাসান খুবই সুগঠিত ও ধারাবাহিক একজন বোলার। বাংলাদেশের ক্যাপ মাথায় সে অনেকগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলেছে। সে কলকাতা নাইট রাইডার্স দলে খেলেছে দীর্ঘদিন। হায়দরাবাদের আত্মবিশ্বাসের বড় নাম টাইগার সাকিব।

ইনিংসে পাওয়ার প্লে ও শেষের ওভারে যেমন বল করতে হয় তা পারে সে। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের নিয়মিত একাদশে সাকিবকে সুযোগ দেয়া হবে তো? এমন প্রশ্ন হয়তো জাগছে বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারের ভক্ত সমর্থকদের। সাকিবকে নিয়ে তাদের পরিকল্পনা স্পষ্ট করেছেন সানরাইজার্সের মেন্টর ভিভিএস লক্ষণ। তিনি জানান অলরাউন্ডার হওয়ার সুবাদে একাদশে সাকিবের উপস্থিতিটা তাদের জন্য আলাদা গুরুত্বপূর্ণ। গত মৌসুমে আইপিএলে বল হাতে নৈপুণ্য দেখান সানরাইজার্স হায়দরাবাদের আফগান লেগস্পিনার রশিদ খান। এবারো দলের রয়েছেন রশিদ। আর সাকিব-রশিদের যুগলবন্দিতে দলের স্পিন আক্রমণ নিয়ে আত্মবিশ্বাস বেড়েছে কোচ মুরালিধরনেরও। লঙ্কান এ স্পিন লিজেন্ড বলেন, গত বছর আমরা তাকে (রশিদ) কেবল পাওয়ার প্লেতে ব্যবহার করেছি। তবে এবার দলে সাকিব রয়েছে। তাই রশিদ এবার ইনিংসের মাঝের ওভার গুলোতেও বল করার সুযোগ পাবে এবং এতে উইকেট পাওয়ার সুযোগ বাড়বে তার। এবারের আইপিএলে সানরাইজার্স নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে আগামী ৯ই এপ্রিল। প্রথম ম্যাচে সাকিবরা খেলবে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আইপিএলে ফেরা রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে। গত ক’বছর মিডল অর্ডার ব্যাটিং নিয়ে ভুগতে হয়েছে হায়দরাবাদকে।

দুই ওপেনার ওয়ার্নার-ধাওয়ান দুর্দান্ত শুরু এনে দিলেও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় অনেক ম্যাচই হারতে হয়েছে তাদের। এবার মিডল অর্ডার ব্যাটিংয়ের কথা বিবেচনায় রেখে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে দলে ভিড়িয়েছে তারা। গতকাল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মেন্টর ভিভিএস লক্ষণ বলেন, ‘গত ক’বছর আমাদের মিডল অর্ডার তেমন কার্যকর ছিল না। তবে এবার মনীশ পান্ডে, ইউসুফ পাঠান, কেইন উইলিয়ামসন, সাকিব আল হাসানের মতো খেলোয়াড় আছে যারা দ্রুত উইকেট পতন ঘটলেও দলকে টেনে নিয়ে যেতে পারবে। ভারতের সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান লক্ষণ বলেন, গত বছর আমরা দুই স্পিনার থাকা সত্ত্বেও একজনকে খেলিয়েছি। কিন্তু এ বছর অবশ্যই দুইজনকে খেলাবো। কারণ সাকিব অলরাউন্ডার। এটাই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমরা তার কাছে থেকে ব্যাটিং পাবো যা ব্যালেন্স টিম গঠনে ভূমিকা রাখবে। সাকিবের বোলিং নিয়ে লক্ষণ বলেন, কিছু কিছু উইকেটে একাদশে তিন স্পিনার নিয়ে খেলতে হয়। আমাদের দলে এখন অনেক স্পিনার। রশিদ খান খুবই আক্রমণাত্মক বোলার। আমরা উইকেটের জন্য তার ওপর নির্ভর করবো। আর সাকিব যেসব দলে খেলেছে ভালো করেছে। আসরে গত ৭ বছর কলকাতা নাইট রাইডার্স হয়ে খেলেন সাকিব আল হাসান। তবে এবারের দলবদলে ২ কোটি রুপিতে সাকিবকে দলে ভেড়ায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

এবার গর্বের এক মাইলফলকের সামনে রয়েছেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি লীগগুলোতে বল হাতে ২৫৪ ম্যাচে সাকিবের শিকার ২৯৪ উইকেট। ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে ৩০০ উইকেটের কৃতিত্ব রয়েছে বিশ্বের মাত্রই চারজন বোলারের। তালিকার শীর্ষে ক্যারিবীয় পেসার ডোয়াইন ব্রাভোর শিকার ৩৭৫ ম্যাচে ৪১৩ উইকেট। দ্বিতীয় স্থানে আছেন শ্রীলঙ্কার পেস তারকা লাসিথ মালিঙ্গা (২৫৬ ম্যাচে ৩৪৮ উইকেট)। ২৭১ ম্যাচে ৩১৭ উইকেট নিয়ে তালিকায় অফস্পিনার সুনীল নারাইনের অবস্থান তৃতীয়। ২৭৪ ম্যাচে কাঁটায় কাঁটায় ৩০০ উইকেট রয়েছে লেগস্পিনার আফ্রিদির।